ইরাকের উত্তরাঞ্চলীয় মসুল শহরে উগ্র তাকফিরি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী দায়েশের হাতে নিহত ৫০০ ব্যক্তির গণকবর আবিষ্কার করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। সম্প্রতি সেনা অভিযানে পরাজিত দায়েশের নিয়ন্ত্রিত কারাগারের কাছাকাছি একটি স্থানে এই গণকবরের সন্ধান পাওয়া গেছে।

ইরাকে সেনাবাহিনীর সিকিউরিটি ইনভেস্টিগেশন টিম এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘বাদুশ’ কারাগারের নিকটবর্তী একটি স্থানে খুঁজে পাওয়া গণকবর থেকে ৪৭০ জনের লাশ এবং তার পাশে আরেকটি গণকবর থেকে ৩০ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন নিরাপত্তা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, নিহত হতভাগ্য এসব ব্যক্তি শিয়া বা অন্য কোনো সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ বলে ধারনা করা হচ্ছে। ইরাকে এ পর্যন্ত আবিষ্কৃত গণকবরগুলোর মধ্যে এটি সর্ববৃহৎ বলে জানিয়েছেন ওই কর্মকর্তা।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ গত মার্চ মাসে খবর দিয়েছিল, উগ্র তাকফিরি জঙ্গি গোষ্ঠী দায়েশ মসুলে তাদের নিয়ন্ত্রণে থাক শত শত বন্দিক হত্যা করে গণকবরে চাপা দিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা নিউ ইয়র্কভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থাটিকে বলেছেন, এই গণকবরে মাটিচাপা পড়া ব্যক্তিদের মধ্যে ইরাকি নিরাপত্তা বাহিনীর বেশ কিছু সদস্য রয়েছেন এবং তাদেরকে ২০১৪ সালের জুন মাস থেকে ২০১৫ সালের মে মাসের মধ্যে হত্যা করা হয়।

২০১৪ সালের জুন মাসে ইরাকের বিশাল এলাকা দখল করে দায়েশ। এরপর ইরাকের মসুল শহরের আন-নুরি মসজিদ থেকে কথিত খেলাফতের ঘোষণা দেন দায়েশ প্রধান আবু বকর আল-বাগদাদি। তবে দীর্ঘ প্রায় এক বছরের অভিযান চালিয়ে সম্প্রতি শহরটি থেকে দায়েশকে পুরোপুরি বিতাড়িত করেছে ইরাকের সেনাবাহিনী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য