নিজ মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে ঠাকুরগাঁও পৌর শহরের রোড মোয়াজ্জেন পাড়া এলাকার মানিক (৪০) নামের এক পাষন্ড বাবাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার ভোরে ধর্ষক মানিককে সেতাবগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করেছে বলে ওসি মশিউর রহমান নিশ্চিত করেছেন।

নিজ মেয়েকে ধর্ষনের অভিযোগ এনে মা শিল্পী বেগম স্বামী মানিকের বিরুদ্ধে একটি  অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগে জানা গেছে, পৌর শহরের রোড মোয়াজ্জেনপাড়া এলাকার মানিক ৩ কন্যা সন্তানের জনক। মানিকের স্ত্রী শিল্পী বেগম গত কয়েকদিন ধরে অসুস্থ জনিত কারণে ঠাকুরগাও আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এই সুযোগে গত দু’দিন আগে রাতে নিজ বড় মেয়েকে (১৩) ঘুমের ওষুধ খাওয়ায় ধর্ষণ করেন মানিক। পরদিন সকালে বড় মেয়ে হাসপাতালে গিয়ে ঘটনাটি মা শিল্পী বেগমকে অবগত করলে ঠাকুরগাঁও থানা পুলিশের কাছে ধর্ষণের অভিযোগ করেন। এরপর মানিক ঠাকুরগাঁও থেকে পালিয়ে যায়।

পুলিশ পরে ধর্ষনের আলামত জানার জন্য ধর্ষিতা কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষা জন্য সদর হাসপাতালে পাঠান।

পুলিশ গোপন সংবাদে ভিত্তিতে সোমবার ভোরে ধর্ষনের অভিযোগে পাষন্ড বাবা মানিককে সেতাবগঞ্জ উপজেলায় তার আতœীয়ের বাড়ি থেকে আটক করে ঠাকুরগাঁও থানায় নিয়ে আসেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কফিল উদ্দিন জানান, অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ দিনাজপুর  সেতাবগঞ্জ উপজেলায় পালিয়ে থাকা মানিককে গ্রেফতার করে আনে।

ঠাকুরগাও থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান জানান, ধর্ষনের অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধর্ষণ হয়েছে কি না ডাক্তারি পরীক্ষার পরে বিষয়টি জানা যাবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য