দিনাজপুর সংবাদাতাঃ হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক পরিষদের উদ্যোগে “বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ড ও বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার উপর হামলা” শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকাল ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়াম-২ এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক পরিষদের আহ্বায়ক প্রফেসর মো. মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক পরিষদের সদস্য সচিব ও ভেটেরিনারি অ্যান্ড এনিমেল সায়েন্স অনুষদের ডীন প্রফেসর ডা. মো. ফজলুল হক, সোস্যাল সায়েন্স অ্যান্ড হিউম্যানিটিস অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. ফাহিমা খাতুন, জনসংযোগ ও প্রকাশনা শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. শ্রীপতি সিকদার, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ড. ভবেন্দ্র কুমার বিশ্বাস, কীটতত্ত্ব বিভাগের প্রফেসর ড. মো. আব্দুল আহাদ, মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. মো. শাহাদৎ হোসেন খান, প্রক্টর প্রফেসর ডা. মো. খালেদ হোসেন, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের সহকারী পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম, উপ-পরিচালক কৃষিবিদ ফেরদৌস আলম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কে বার বার হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা করে তাঁকে আবারও হত্যা চেষ্টা করা হয়।

আওয়ামীলীগ নেত্রী আইভি রহমানসহ অনেকেই এ হামলায় নিহত হলেও আল্লাহ্র অশেষ রহমতে তিনি বেঁচে যান। তিনি বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কে হত্যা করে এ দেশ থেকে বঙ্গবন্ধু আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে চিরতরে মুছে ফেলার ষড়যন্ত্র করছে দেশীয় ও আর্ন্তজাতিক কুচক্রী মহল।

এ ষড়যন্ত্রকে প্রতিহত করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। বঙ্গবন্ধু হত্যার বিদেশে পলাতক বাকী আসামীদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করতে এবং ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার দ্রুত সম্পন্ন করতে আহ্বান জানান তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য