মাহবুুবুল হক খান, দিনাজপুর থেকেঃ দিনাজপুরে স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায় ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। বন্যায় জেলায় ১ লাখ ৫৫ হাজার ৪৭১টি পরিবারের ৬ লাখ ২১ হাজার ৮৮৪ জন মানুষ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। মারা গেছে ৩০ জন মানুষ।

দিনাজপুর জেলা প্রশাসক অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত ১২ আগষ্ট থেকে দিনাজপুরে ভয়াবহ বন্যায় জেলার ১৩ উপজেলার বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়। এতে গৃহহীন হয়ে পড়ে প্রায় ৬ লাখ মানুষ। জেলা প্রশাসনের হিসেব অনুযায়ী জেলার ১০৩টি ইউনিয়নের মধ্যে ৯০টিরও বেশী ইউনিয়ন প্লাবিত হয়। ক্ষতিগ্রস্থ হয় ১ লাখ ৫৫ হাজার ৪৭১টি পরিবারের ৬ লাখ ২১ হাজার ৮৮৪ জন মানুষ। বিধ্বস্ত হয়েছে ৫৯ হাজার ২৯৯টি ঘরবাড়ী। এসবের অধিকাংশই বহু বছর আগের ঐতিয্যবাহী মাটির ঘর। বন্যার পানিতে তলিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ১ লাখ ২১ হাজার হেক্টর জমি আমন ফসল। এছাড়াও প্রায় ১২ হাজার পুকুরের মাছ বন্যার পানিতে ভেসে গেছে।

দিনাজপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগে নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মাসুদ সারওয়ার জানান, বন্যায় জেলার ১৬৪ কিলোমিটার আঞ্চলিক সড়কের মধ্যে ১১৪ কিলোমিটার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এছাড়া এলজিইডি’র ২২ কিলোমিটার স্থানীয় সড়কের মধ্যে ৫০ ভাগ কিলোমিটার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। শতাধিক কালভার্ট নষ্ট হয়েছে। এছাড়া প্রায় ১৫ কিলোমিটার রেললাইন ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

দিনাজপুর জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. আবুল কালাম আজাদ জানান, জেলায় ১৫ লাখ গরু, ২ হাজার ৮২৭টি মহিষ, ৯ লাখ ৩৩ হাজার ছাগল ও ১ লাখ ৩৩ হাজার ভেড়া রয়েছে। এর মধ্যে আসন্ন কুরবানির জন্য ৫৯ হাজার ২৬০ জন খামারী ১ লাখ ২৭ হাজার ৩৬৯টি গরু ও ৭০ হাজার ৭৯৬টি খাসি মোটাতাজাকরণ করেছিল। কিন্তু জেলার বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হওয়ায় ৩ লাখ ৭২ হাজার ৫০৫টি গরু, ১০৭টি মহিষ, ২ লাখ ১ হাজার ৯৩১টি ছাগল ও ১১ হাজার ৪৭০টি ভেড়া বন্যাকবলিত হয়। বন্যায় গো-খাদ্যের জন্য ৩৪৭ একর জমির কাঁচাঘাস ও ১ হাজার ৬৬৬ মেট্রিক টন খড় নষ্ট হয়। ফলে জেলায় গো-খাদ্যের তীব্র সংকট দেয়া দিয়েছে।

দিনাজপুর জেলা ত্রান ও পূণর্বাসন কর্মকর্তা মো. মোখলেছুর রহমান জানান, বন্যায় গৃহহীন মানুষের জন্য সরকারীভাবে ২১৮টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। এসব আশ্রয়কেন্দ্রে ১৩ হাজার ১৫৬টি পরিবারের ৪১ হাজার ৬৫০ মানুষ আশ্রয় নেয়। তবে বেসরকারী হিসেব অনুযায়ী জেলায় প্রায় ২ হাজার ৯শ’ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গৃহহীন মানুষের আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

জেলা ত্রান ও পূণর্বাসন কর্মকর্তা আরো জানান, গত ১৯ আগষ্ট পর্যন্ত বন্যাদুর্গত মানুষের জন্য ১৭৯৫ মেট্রিক টন চাল ও নগদ ৭১ লাখ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। তিনি জানান, জেলায় এ যাবত ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে পানিতে ডুবে ২৫ জন, দেয়াল চাপা পড়ে তিনজন ও সাপের কামড়ে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য