সৈয়দপুরে গলায় ফাঁস দিয়ে লাবনী (৩৫) নামে এক গৃহবধু আত্মহত্যা করেছে। গত রোববার সন্ধ্যায় ওই গৃহবধুর লাশ তার নয়াটোলাস্থ বাসভবন থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। তার মৃত্যু রহস্যজনক বলে ধারণা করা হচ্ছে। মৃত গৃহবধুর স্কুল পড়ুয়া ২টি শিশু সন্তান রয়েছে।

পুলিশ জানায়, শহরের নয়াটোলা এলাকার বাসিন্দা গৃহবধু লাবনী ঘটনার দিন সন্ধ্যায় মেয়েকে ঘুমানোর কথা বলে শয়ন কক্ষে ঘুমাতে যায়। এক পর্যায়ে মেয়ে লাবনী মাকে চা খাওয়ার জন্য ডাকাডাকি করে। কিন্তু মায়ের কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে ভেড়ানো দরজা খুলে জানালায় মায়ের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় সে।

এ সময় তার আত্মচিৎকারে পাশের ঘর থেকে ভাই ছুটে আসে। খবর পেয়ে বাইরে থাকা গৃহবধুর স্বামী রবিউল ছুটে আসেন। পরে স্বামী রবিউল ২ শিশু সন্তানকে নিয়ে থানায় ঘটনাটি জানায়। এরপর পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে গৃববধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে। লাশের গলায় ওড়না পেচানো ছিল।

গৃহবধুর স্বামী শহরের প্লাজা মার্কেটের একটি টেলিকম দোকানের কর্মচারী। স্থানীয় লোকজন জানায়, ওই গৃহবধু ঋণে জর্জরিত ছিল। তার নামে আদালতে ১০ লাখ টাকার চেক ডিজঅনার মামলাও রয়েছে। স্থানীয়দের ধারণা ঋণে জর্জড়িত হয়ে ওই গৃহবধুর আত্মহত্যা করতে পারে।

তার মৃত্যু নিয়ে এলাকায় রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে স্থানীয় থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে। পুলিশ মৃত্যুর বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য