বিরলে বন্যায় মৃতের সংখ্যা দাড়িয়েছে ১১ জন। শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত ১১ জনের লাশ উদ্ধার করেছে স্বজনসহ সাধারণ মানুষ।

এদের মধ্যে ১৮ আগস্ট শুক্রবার সকালে বিরলের বিজোড়া ইউপি’র মুরাদপুর গ্রামের খায়রুল ইসলামের পুত্র নাইমুর রহমান নাঈম (১৭) এর লাশ রেল লাইনের নিকটবর্তী স্থান থেকে, ১৬ আগস্ট বুধবার সকালে দিনাজপুর সদর উপজেলার ষষ্টিতলা (হাড্ডিগোডাউন) এলাকার আনিছুর রহমানের পুত্র আশিক (৯) এর লাশ বিরলের কাঞ্চন নিউ মডেল কলেজ সংলগ্ন পশ্চিমে ও রাণীপুকুর ইউপি’র কাজিপাড়া গ্রামের মিজানুর রহমানের কন্যা মিনি আকতার (৪)এর লাশ বাড়ীর পার্শ্ববর্তী পুকুরে, ১৫ আগস্ট মঙ্গলবার দুপুরে গড়বাড়ী গ্রামের সুরাই মুর্মুর পুত্র মুচিয়া মুর্মু গডো (৬৭) এর লাশ কানাইবাড়ী সাবেক ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যন আনোয়ারুল ইসলামের বাড়ীর পশ্চিমে, রাণীপুকুর ইউপি’র ছোট চৌপুকুরিয়া (মলানিয়া) গ্রামের শরিফ উদ্দিনের পুত্র সাত্তার (৪০) এর লাশ পলাশবাড়ী-জগতপুর বটতলী সড়কের খাদে ও পলাশবাড়ী ইউপি’র ভূতিগাঁও গ্রামের আফছার আলীর পুত্র মফিজুর রহমান (২০) এর লাশ বাড়ীর পার্শ্ববর্তী এলাকায়, ১৩ আগস্ট রবিবার রাজারামপুর ইউপি’র হাসিলা গ্রামে একই পরিবারের রহমান আলীর সন্তান রমিজা (১৩), শরীতুল্লাহ শহীদ (১০), মিম আকতার (৭), প্রতিবেশি সায়েদ আলীর পুত্র সিহাব আলী (১০) এর লাশ বাড়ীর পার্শ্ববর্তী বলারামপুর দাখিল মাদ্রাসার সন্নিকটে এবং মালঝাড় গ্রামের বাবুল রায়ের স্ত্রী দিপালী রায় (৩২) এর সর্পদংশনে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য