মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর থেকেঃ সড়ক যোগাযোগ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, আমরা এখানে এক দিনের জন্য সাহায্য দিতে আসিনি, রিলিপ দিতেও আসিনি। আমরা প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে এসেছি। যতদিন পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পূণর্বাসন না হবে, অসহায় গরিব মানুষ তাদের ঘর-বাড়ীতে ফিরে না যাবে, যতদিন তাদের খাওয়া এবং পূণর্বাসনের ব্যবস্থা না হবে, ততদিন পর্যন্ত সরকার আমরা আপনাদের পাশে থাকবো। আপনাদেরকে নতুন করে ঘর-বাড়ী নির্মাণ করে দিবো। পণর্বাসন না হওয়া পর্যন্ত শেখ হাসিনার সরকার আপনাদের পাশে থাকবে।

শুকবার (১৮ আগষ্ট) বেলা ১২টায় মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দিনাজপুর জেলার বিরল উপজেলার রঘুপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বন্যাদুর্গত এলাকা পরিদর্শন ও ত্রান সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আপনারা বয়ষ্কভাতা, বিধুবা ভাতা, মুক্তিযোদ্ধা ভাতাসহ বিভিন্ন ভাতা পাচ্ছেন। বিরলের গ্রামে বসে আমেরিকা, দক্ষিণ আপ্রিকা, সৌদি আরবসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রবাসী স্বজনদের সাথে কথা বলতে পারছেন। এই কথা বলার সুযোগ করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার। ১৩ কোটি মানুষের হাতে মোবাইল ফোন তুলে দিয়েছেন। এই ডিজিটাল বাংলাদেশ শেখ হাসিনার উপহার। তাই শেখ হাসিনার সরকার দেশে বাবর বার দরকার।

মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, বিএনপি আপনাদেরকে কিছুই দিবে না। মাঝে মাধ্যে এসে বক্তব্য দিয়ে যাবে। কিন্তু এই বক্তব্যে পেট ভরবে না। আমরা আপনাদের সাহায্য দিবো, ঘর-বাড়ী, রাস্তা-ঘাট করে দিবো, সব সুবিধা আমরা দিবো। মন্ত্রী দলীয় নেতাকমূীদের উদ্দেশ্যে বলেন, এ দেশের সাধারণ মানুষ এতো ভাল তাই আমাদেরকে সাধারণকে খুশি রাখতে হবে। আপনারা ক্ষমতার দাপট দেখাবেন না। কারণ ক্ষমতা চিরদিন থাকে না।

মন্ত্রী বলেন, বিএনপি এখন নালিশ পার্টিতে পরিণত হয়েছে। তাদের এখন আর কোন কর্মসূচী নেই। শুধু ঘরে বসে কান্না কাটি-কাটি আর প্রেস বিফ্রিং ছাড়া আর কিছুই নেই। ঈদের পরে আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছিলেন খালেদা জিয়া। কিন্তু ঈদের পরে কতদিন হয়ে গেল আন্দোলন নেই। বিএনপির আন্দোলনের মরা গাঙ্গে জোয়ার আর আসে না। ফখরুল সাহেব বসে বসে শুধু কান্না কাটি করেন। খালেদা জিয়ার আন্দোলন এখন লন্ডনের। তিনি বলেন, বিএনপি একেকবার একেকটা ইস্যুকে জড়িয়ে ধরে, কিন্তু কোন ইস্যুই কাজে আসে না। সর্বশেষ সুপ্রিম কোর্টের রায়কে জড়িয়ে ধরেছিল। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে ওই রায়কে জড়িয়ে ধরার কৌশলও ভেস্তে গেছে। এখন ফখরুল সাহেবের মন খারাপ হয়ে গেছে।

তারা ১৫ আগষ্টের মত আরেক ষড়যন্ত্র করেছিল, তাদের সেই ষড়যন্ত্রও নষ্যাৎ করে দিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তারা ষোড়শ সংশোধনীর রায় ভাল করে পরে দেখেনি। রায়ে শুধু আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে যা কিছু পেয়েছে এটা দেখেই তারা লাফালাপি করছে। ওই রায়ে জিয়াউর রহমানকে অবৈধ ক্ষমতাদখলকারী হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। তারা এখন শুধু অন্ধকারে ঢিল ছুড়ছে।

বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শিল্পপতি মো. আব্দুল লতিফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মোস্তাফিজুর রহমান বাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. মো. রবিউল ইসলাম রবি, বিজোড়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. আমজাদ আলী প্রমূখ।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডলির সদস্য সতীস চন্দ্র রায়, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক এমপি, ত্রান বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায়, দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলি সাদিক, প্রধানমন্ত্রীর এটুআই প্রজেক্টের পরিচালক নাইমুজ্জামান মুক্তা, জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মির্জা আশফাক হোসেন, ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেলসহ জেলা ও বিভিন্ন উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বাদ জুমা সড়ক ও সেতুমন্ত্রী দিনাজপুর সদর উপজেলায় বন্যা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষন বন্যাদুর্গতদের মাঝে ত্রান সামগ্রী বিতরণ করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য