মাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁও থেকেঃ শুনতে অবাক হলেও বাস্তব। এত বড় কাঠাল! বাপের জন্মেও দেখিনি! কত দাম ভাই? কয় কেজি ওজন? দাম কি কম রাখা যায় না কিছু? একটু কম রাখেন?-এমন হাজার প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছেন ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গীর চৌরাস্তার মোড়ে কামরুজ্জামান চৌধুরী নামে এক কাঠাল বিক্রেতা। শুধুমাত্র প্রশ্নই নয়, বরং কাঠালটি দেখতে আসা লোকজনের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে।

তিনি বুধবার বিকাল ৫টায় বালিয়াডাঙ্গী চৌরাস্তার মোড়ে প্রায় ১ মণ ওজনের একটি কাঠাল বিক্রি করতে আসলে কয়েকশ লোকের এ ধরনের প্রশ্নের সম্মুখীন হন। কামরুজ্জামানের বাড়ী উপজেলার দুওসুও ইউনিয়নের সনগাঁও গ্রামে।

তার সাথে কথা বললে জানান, কাঠালটি নিজের বাড়ীর একটি কাঠাল গাছের। প্রতি বছর ১৫-২০টি কাঠাল আসে এ কাঠাল গাছে। যার প্রতিটি কাঠালের ওজন প্রায় ৩০-৪৫ কেজি। তবে কাঠালটি পাকা কাঁচা অবস্থায় বিক্রি করতে নিয়ে এসেছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, কাঠাল নিয়ে আসার পর হইতে কয়েকশ গ্রাহকের নানা রকম প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছেন তিনি। বিশেষ করে কাঠালের দাম জিজ্ঞাসা করেছেন প্রায় শতাধিক ব্যক্তি।

কাঠালের মূল্য ১ হাজার টাকা নির্ধারন করা হলেও এখন পর্যন্ত কোন গ্রাহক ওই কাঠাল কিনতে পারেন নি। শেষ পর্যন্ত কাঠালের দাম বলতে বলতে বিরক্ত হয়ে বিক্রেতা কাঠালের উপর ” মূল্য ১ হাজার টাকা” লিখে কাগজ লাগাবেন এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য