আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার বারাজান গ্রামের কালীরকুড়া এলাকায় ভয়াবহ বন্যায় সড়কটি মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। এতে দুর্ভোগ ও দুর্গতির শিকার হচ্ছে যানবাহন, শিক্ষার্থীসহ ওই সড়কে চলাচলকারী হাজার হাজার লোকজন। সব সময় পানি জমে থাকায় এবং খালের পানিতে একাকার হয়ে সড়কটি ছোট নদীতে পরিণত হয়ে পড়েছে।

বন্যায় লন্ডভন্ড হয়ে যাওয়া সড়কটি খোঁজখবর এখন পর্যন্ত কেউই নেয়নি। এতে এলাকাবাসী ক্ষপ প্রকাশ করেছে। বন্যার পানিতে ভেসে যাওয়া চলাচল রাস্তা খালে পরিণত হয়ে পড়ায় উপজেলার বারাজান গ্রামের কালীকুড়া উপর একটি সড়ক দিয়ে ৮টি গ্রামের ৩০ হাজার মানুষ যাতায়াত করছে।

এ সড়কের একদিকে বারাজান এস.সি উচ্চ বিদ্যালয়, বারাজান নয়া বিদ্যালয়, তেঁতুলিয়া দাখিল মাদ্রাসা, উত্তরবাংলা কলেজ,দুহুলী স্কুল এন্ড কলেজ। অপর প্রান্তে বান্দেরকুড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর বান্দেরকুড়া রেজিঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়, মদনপুর রেজিঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় ৫ শতাধিক ছাত্র/ছাত্রী জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সড়ক পারাপার করছে।

গ্রামগুলোর মানুষ ঝুঁকি নিয়ে পার হয়ে যাচ্ছে উভয়প্রান্তের হাট-বাজারে। স্থানীয় সম্রাট শাহজান,শাহীন, রফিকুল ইসলাম প্রমুখ জানান, বন্যার পর পানি সরে যাওয়ার রাস্তাগুলো দিয়ে পায়ে হেঁটে চলাই কষ্টকর। বর্তমানে ওই রাস্তা দিয়ে যাত্রীবাহী কোনো যানবাহন চলাচল করতে পারছে না।কালীগঞ্জ উপজেলার এলজিইডি প্রকৌশলী পারভেজ নেওয়াজ খান জানান,এবারের বন্যায় সড়ক গুলোর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তবে দ্রুত সড়কগুলো সংস্কার করা হবে বলে।

তিনি জানান।চলবলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজু জানান, জনগুরুত্বপূর্ণ ওই সড়ক দিয়ে প্রতিনিয়ত স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রী, ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ চলাচল করেন। কৃষকরা তাদের উৎপাদিত ফসল হাট-বাজারে নিয়ে যান। তাই দ্রুত সড়কগুলো সংস্কার প্রয়োজন। উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা মামুনুর ভূঁইয়া জানান, রাস্তাগুলো দ্রুত সংস্কার করা প্রয়োজন। এতে করে জনদুর্ভোগের অবসান হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য