নাইজেরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে তিন নারী জঙ্গির আত্মঘাতী হামলায় অন্তত ২৭ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও অনেকে। বুধবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বর্নো রাজ্যের মাইদুগুরিতে এক শরণার্থী শিবিরের সামনে তিন নারী এই হামলা চালানো হয়। এখনও কোন সন্ত্রাসী গোষ্ঠী এই হামলার দায়ভার স্বীকার করেনি। তবে সরকারের দাবি, জঙ্গিগোষ্ঠী বোকো হারাম এই হামলা চালিয়ৈ থাকতে পারে।

বোর্নো রাজ্যে বোকো হারামের শক্তিশালী ঘাটি রয়েছে। ২০০৯ সালে নাইজেরিয়া সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে এই গোষ্ঠী। সাম্প্রতিক মাসগুলোতে এ রাজ্যে তাদের সহিংসতার মাত্রা কয়েক গুণ বেড়েছে।

গত সপ্তাহে মার্কিন সন্ত্রাসবিরোধী গবেষকদের এক প্রতিবেদনে দেখা যায়, বোকো হারামেরই জঙ্গি কার্যক্রমে পুরুষের চেয়ে নারী আত্মঘাতীর সংখ্যা বেশি। গত বছর অবশ্য নাইজেরিয়ার সরকার দাবি করেছিলো বোকো হারামকে দমন করেছে তারা।

জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে গঠিত পর্যবেক্ষণকারী বাহিনীর সদস্য বাবা কুরা বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানন, মঙ্গলবার প্রথমে এক নারী আত্মঘাতী শরণার্থীশিবিরের কাছে নিজেকে উড়িয়ে দেয়। এতে সেখানে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এরপর স্থানীয় দোকানিরা যখন তড়িঘড়ি করে তাদের দোকানপাট বন্ধ করছিল, তখন অন্য দুই নারী বোমার বিস্ফোরণে নিজেদের উড়িয়ে দেয়। এ সময় অধিকাংশ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য