শান্তিচুক্তির অংশ হিসেবে কলম্বিয়ার বামপন্থি ফার্ক বিদ্রোহীরা ৮ হাজারের বেশি অস্ত্র এবং প্রায় ১৩ লাখ গুলি জমা দিয়েছেন বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

মঙ্গলবার লা গুজারিয়া প্রদেশের ফনসেকা এলাকার পরিত্যক্ত ঘাঁটি থেকে সর্বশেষ অস্ত্রের চালান সরিয়ে নেওয়ার পর ফার্ক বিদ্রোহীদের নিরস্ত্রিকরণ প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে বলে জাতিসংঘের বরাত দিয়ে জানিয়েছে রয়টার্স।

শান্তিচুক্তির পর অস্ত্র জমা এবং ফনসেকা থেকে সর্বশেষ অস্ত্রের চালান সরিয়ে নেওয়ার বিষয়টি তত্ত্বাবধান করে আসছিল জাতিসংঘ।

চলতি বছরের শুরু থেকে যে দুই ডজনের বেশি ঘাঁটিতে ফার্ক বিদ্রোহীরা অবস্থান করছিল ফনসেকা ছিল তার একটি।

সর্বশেষ চালান সরিয়ে নেওয়া উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে কলম্বিয়ায় জাতিসংঘ মিশনের প্রধান জন আর্নল্ট বলেন “আজ পর্যন্ত আমাদের মিশন শেষ হল, বিভিন্ন কনটেইনারে জমা পড়েছে ৮ হাজার ১১২টি অস্ত্র; ধ্বংস হয়েছে ১৩ লাখ কার্তুজ।”

এর আগে জুনে জাতিসংঘ ফার্ক গেরিলাদের ব্যবহৃত ৭ হাজার ১৩২টি অস্ত্র জমা পড়ার কথা জানিয়েছিল।

বিদ্রোহীদের জমা দেওয়া এসব অস্ত্র দিয়ে গত বছর হুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোস এবং ফার্কের মধ্যে হওয়া শান্তিচুক্তির স্মরণে তিনটি ভাস্কর্য বানানো হবে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

চুক্তি অনুযায়ী আনুমানিক ৭ হাজার ফার্ক যোদ্ধা অস্ত্র সমর্পণ করে; এর বিনিময়ে কলম্বিয়ার জাতীয় কংগ্রেসে নির্বাচন ছাড়াই ১০টি আসন দেওয়া হবে ফার্ককে, ২০২৬ সাল পর্যন্ত এই সুবিধা ভোগ করবে ফার্ক। এছাড়া গেরিলা দলটির বেশিরভাগ সাবেক যোদ্ধা সাধারণ ক্ষমার আওতায় বিচার থেকে রেহাই পাবেন।

মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায়ে যেসব বিদ্রোহীকে বিশেষ আদালতে দণ্ড দেওয়া হয়েছিল, শান্তিচুক্তি অনুযায়ী তাদেরকেও সাধারণ কারাগার থেকে সরিয়ে মাইন অপসারণসহ বিভিন্ন পুনর্গঠনমূলক কাজে নিয়োগ দেওয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য