ছবি ক্রেডিটঃ নুর ইসলাম দিনাজপুর থেকে

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরে বন্যা পরিস্থিতির সামান্য উন্নতি হয়েছে। আস্তে আস্তে বন্যার পানি কমছে। তবে বানভাসী মানুষের দুর্ভোগ বেড়েছে। দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ খাবার পানি ও খাদ্য সংকট। এছাড়া গবাদি পশুর খাদ্য সংকটও দেখা দিয়েছে। এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাড়িয়েছে ১৬ জনে।

সেনাবাহিনী ও বিজিবিসহ বন্যার্তদের উদ্ধার এবং বাধ নির্মাণের কাজ অব্যাহত রয়েছে। সেনাবাহিনীর ৬৬ পদাতিক ডিভিশনের মেজর তৌহিদ ও মেজর খালিদের নেতৃত্বে সেনাবাহিনীর সদস্য ভেঙ্গে যাওয়া বাঁধ নির্মাণে কাজ করছে।

দিনাজপুর শহরের বালুবাড়ী, মালদাহপট্টি, নিমতলা, নিউটাউন এলাকায় মঙ্গলবার রাত থেকে পানি কমতে শুরু করেছে। দিনাজপুরের সাথে সারা দেশের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

দিনাজপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, প্রধান ৪টি নদীর পানি এখনও বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। শহরের পাশ দিয়ে অতিবাহিত পূণর্ভবা নদীর পানি ৮০ সেন্টিমিটার থেকে কমে বিপদসীমার ৬৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া অন্যান্য নদীর পানিও ১০-১৫ সেন্টিমিটার পর্যন্ত কমেছে।

দিনাজপুর পৌরসভার কাউন্সিলর মো. রেহাতুল ইসলাম খোকা জানান, ডুবে যাওয়া শহরের বালুবাড়ী এলাকাসহ অন্যান্য এলাকায় মঙ্গলবার মধ্যরাতের পর হতে পানি ৪/৫ ইঞ্চি কমেছে। তবে পানি কমলেও বিশুদ্ধ খাবার পানি ও খাদ্য সংকটে রয়েছে বন্যাদুর্গত এলাকার মানুষ। মানুষের পাশাপামি গবাদি পশু নিয়ে সংকটে রয়েছেন বানভাসিরা। বিদ্যুতায়িত হয়ে মৃত্যু ও যে কোন দুর্ঘটনাকে এড়াতে বন্যাকবলিত এলকায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

এদিকে বানভাসির মানুষের জন্য আওয়ামী লীগ, বিএনসিহ বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ হতে সাধ্যানুযায়ী শুকনো খাবার, চাল-ডালসহ অন্যান্য ত্রান সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য