দিনাজপুর সংবাদাতাঃ সড়ক ও রেলপথে বন্যার পানি উঠায় দিনাজপুরের সঙ্গে সারা দেশের সড়ক ও রেল পথে যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। রোববার সকাল থেকে এ যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। সোমবার (১৪ আগষ্ট) সকাল পর্যন্ত যোগাযোগ বন্ধ ছিল।

এদিকে দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ড অফিসে বন্যার পানি ঢুকে চলতি বছরের জেএসসি পরীক্ষার খাতাসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ কাজগপত্র ভিজে গেছে বলে জানিয়েছেন বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. তোফাজ্জুর রহমান।
অপরদিকে তবে বৃষ্টি না হওয়ায় কিছু কিছু এলাকায় পানি সামান্য কমেছে। শহরের বালুবাড়ী এলাকাসহ আশপাশের কয়েকটি এলাকা নতুন করে প্লাবিত হয়েছে।

দিনাজপুর জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. মোখলেসুর রহমান ও দিনাজপুর স্টেশন সুপার মো. গোলাম মোস্তফা জানান, দিনাজপুরের বিভিন্ন স্থানে রেললাইন ডুবে যাওয়া রোববার (১৩ আগস্ট) থেকে দিনাজপুরের সঙ্গে সারা দেশের রেল থেকে বন্ধ রয়েছে।

অন্যদিকে সড়ক পথেও বন্যার কারণে দিনাজপুরের সঙ্গে সারাদেশের যোগাযোগ বন্ধ আছে বলে জানিয়েছেন জেলার মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রাব্বি। দিনাজপুরে বন্যায় চার উপজেলায় ৮ শিশুসহ ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ রয়েছে এক শিশু। জেলায় ৬৬টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। এসব আশ্রয়কেন্দ্রে প্রায় ৯০ হাজার বানভাসি মানুষ আশ্রয় নিয়েছে।

জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম জানান, সেনাবাহিনী ও বিজিবি সদস্যরা উদ্ধার কাজ অব্যাহক রেখেেেছ। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বন্যাদুর্গতদের মাঝে ইতোমধ্যে এক লাখ ১০ হাজার টাকা এবং ৬৭ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও বন্যার্তদের জন্য ৫০ লাখ টাকা এবং ৩০০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ চেয়ে ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য