কাহারোল (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ কাহারোলে স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হলেও কমেনি পানি বন্দীদের দুর্ভোগ ॥ বন্যার পানিতে ডুবে একই পরিবারের ৪ শিশু সহ ৫ জন নিহত হওয়ার সংবাদ পাওয়া গেছে। বন্যায় অনেক কাচা ঘর বাড়ি বিধস্থ হয়ে পড়েছে। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মামুনুর রশীদ চৌধুরী ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আসলাম মোল্লা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নৌকা ও ভেলায় ঘুরে ঘুরে আশ্রয় নেওয়া বন্যার্দূগতদের মাঝে শুকনা খাবার ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রয়েছে। পানি বন্দী হয়ে পড়েছে ৩০ হাজারেও অধিক পরিবার।

দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলা সদর সহ কয়েকটি ইউনিয়ন বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় শত শত হেক্টর আমন ধানের ক্ষেত নষ্ট ও পুকুরের মাছ পালিয়ে গেছে। এর ফলে মৎস্য চাষীরা চরম ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়েছে। গত কয়েকদিনের অবিরাম ভারী বর্ষন ও উজান থেকে নেমে আসা পানিতে প্লাবিত হয় কাহারোল উপজেলা সদর সহ ৬ টি ইউনিয়নের মধ্যে মুকুন্দপুর ইউনিয়ন, রামচন্দ্রপুর ইউনিয়ন, রসুলপুর ইউনিয়ন, ডাবোর ইউনিয়ন, সুন্দরপুর ইউনিয়ন সমূহ।

এদিকে শনি, রবি, সোমবার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সার্বক্ষনিক পানি বন্দীদের মাঝে ৬০টি অস্থায়ী আশ্রয় কেন্দ্রে গিয়ে শুকনা খাবার, রুটি, মুড়ি, গুড়, চিড়া, বিশুদ্ধ পানি ও অন্যান্য ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন। বন্যার পানিতে উপজেলা সদর প্লাবিত হওয়ায় দিনাজপুর সহ অন্যান্য উপজেলার সঙ্গে যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে পড়েছে।

অন্যদিকে রোববার উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের ঈশ্বরগ্রামে আব্দুর রহমানের কন্যা চুমকি (১৩), শহিদ আলী (১০) সিয়াদ (৭) ও প্রতিবেশি সাঈদ হোসেনের পুত্র সিহাদ (৭) পানিতে পড়ে মারা যায়। একই দিনে একই ইউপি’র রামচন্দ্রপুর গ্রামের এক মহিলা পানিতে ডুবে মারা যায়। তাদের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কাহারোল থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মনসুর আলী সরকার ও সংশ্লিষ্ট রামচন্দ্রপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আতাউর রহমান বাবুল।

বন্যার্দূগতদের ত্রাণ সাহায্য হিসাবে দিনাজপুর জেলা প্রশাসক নগদ ১৫ হাজার টাকা ও ১০ মেঃ টন চাল বরাদ্দ করেছেন। যা নগন্য ও অপ্রতুল্য বলে অনেকেই মন্তব্য করেছেন। ভয়াবহ বন্যার ফলে দেখা দিয়েছে তীব্র আকারে গো-খাদ্য সংকট। অনেকেই ত্রাণ বন্যার্দূগত মানষজনেরা তেমন সাহায্য সহযোগিতা না পাওয়ার কারণে মানবেতর জীবন যাপন করতে দেখা গেছে।

তাই জরুরী ভিত্তিতে অত্র কাহারোল উপজেলায় পানি বন্দী মানুষজনের জন্য বেশি বেশি ত্রাণ সামগ্রী প্রদান করার ক্ষেত্রে অনেকেই আহবান জানিয়েছেন। গতকাল সোমবার উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে বন্যার পানিতে ডুবে মারা যাওয়া পরিবারের মধ্যে সাহায্য সহযোগিতা প্রদান করা হবে বলে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মামুনুর রশীদ চৌধুরী জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য