ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দনাজপুরের ফুলবাড়ীতে গত তিন দিনের ভারি বর্ষনে দেখা দিয়েছে বন্যা। প্লাবীত হয়েছে উপজেলার অধিকাংশ জায়গা। পানির নিচে তলিয়ে গেছে আমন ক্ষেতসহ গ্রামের রাস্তা-ঘাট। পানি বন্দি হয়ে পড়েছে উপজেলার অর্ধ লাখ মানুষ। ভাঙ্গতে শুরু করেছে কাঁচা ঘর-বাড়ী।

আনেকে ঘরবাড়ী ছেড়ে আশ্রায় নিছেছে নিকটস্থ স্কুল কলেজে। এই ভারী বর্ষন আরো কয়েকদিন থাকলে এই অঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতি আরো অবনতি হবে।

এদিকে গতকাল রোববার আকস্কি বন্যার কারনে জরুরী সভা করেছেন উপজেলা প্রসাশন। উপজেলা প্রসাশনের উদ্যোগে খোলা হয়েছে, কন্টোল রুম। গতকাল বিকেল থেকে আশ্রায় নেয়া বন্যাত্রদের মাঝে উপজেলা প্রসাশনের উদ্যোগে সুকনা খাবার বিতরন শুরু করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার এহেতেশাম রেজা।

গত বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে ফুলবাড়ীসহ আশ-পাশের উপজেলা গুলোতে ভারি বর্ষন। টানা বর্ষনে ঘর বন্দি হয়ে পড়েছে সাধারন মানুষ।

উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে দেখা গেছে, উপজেলার মিবনগর ইউপির রাজারামপুর, রামভদ্রপুর জাফরপুর, আলাদিপুর ইউপির রাঙ্গামাটি, রঘুনাথপুর, মেলাবাড়ী, থয়েরবাড়ী ইউপির মহদিপুর, লালপুর, খয়েরবাড়ী, মোক্তারপুরসহ, বেতদিঘী, কাজিহাল, এলুয়াড়ী, দৌলতপুর ,সাতটি ইউনিয়নের প্রায় ৩০টি এলাকা পানির নিচে তলিয়ে গেছে। গ্রামের রাস্তাঘাট পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায়, উপজেলা সদরে সাথে যোগাযোগও বিছিন্ন হয়ে পড়েছে। মাঠের পানি ঢুকে পড়েছে গ্রামে, গ্রামের রাস্তা গুলোতে এখন হাটু পানি, এতে কাঁচা ঘর-বাড়ী ভাঙ্গতে শুরু করেছে, ফলে অনেকে ঘরবাড়ী ছেড়ে নিকটস্থ স্কুল কলেজে আশ্রায় নিতে শুরু করেছে।

এদিকে আকস্কি বন্যায় ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে আমন ক্ষেতের। কৃষকরা বলছেন কয়েক দিন পূর্বে রোপন করা আমন ক্ষেত, পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায়, তা একেবারে বিনষ্ট হয়ে গেছে ।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এটিএম হামিম আশরাফ বলেছেন, এই বছর উপজেলার প্রায় এক হাজার আট’শ হেক্টর জমিতে আমন রোপন করা হয়েছে, তার অধিকাংশ আমন রোপা এখন পানির নিচে তলিয়ে গেছে। তিনি আরো বলেন, তলিয়ে যাওয়া আমন রোপা, বেশি দিন পানির নিচে থাকলে তা পচেঁ যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। তবে ভারি বর্ষনে আমন ক্ষেতের, কি পারিমান ক্ষতি হয়েছে তা তিনি নিশ্চিত করে বলতে পারেনি।

আকস্কি বন্যায় রাস্তা-ঘাট পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় মাছের পুকুর গুলোও পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে মাছ চাষিরা বড় রকমের ক্ষতির মধ্যে পড়েছে।

অপরদিকে টানা বর্ষনে মানুষ ঘর বন্দি হয়ে পড়ায়, কর্মহীন হয়ে পড়েছে কর্মজিবী মানুষেরা, এ কারনে বিপাকে পড়েছে দিনমজুর ও নি¤œ আয়ের মানুষ। তারা এখন মানবেতর জিবন যাপন করছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার এহেতেশাম রেজা বলছেন বন্যাত্রদের জন্য প্রয়োজনীয় ত্রানের উদ্যোগ নিয়েছে উপজেলা প্রসাশন, ইতি মধ্যে প্রত্যাক ইউপি চেয়ারম্যানদের কে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে থাকার নির্দ্দেস দেয়া হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য