পাকিস্তানের পদচ্যুত প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের শূণ্য আসনে উপনির্বাচনের জন্য তার স্ত্রী কুলসুম নওয়াজ শরীফ যে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন নির্বাচন কমিশন বা ইসিতে তা চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে। অ্যাডভোকেট সরফরাজ নামে এক আইনজীবী কুলসুমের মনোনয়নের বিরুদ্ধে ইসিতে এ পিটিশন দায়ের করেন।

কুলসুম নওয়াজ লাহোর-১২০ আসন থেকে উপ নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য এরইমধ্যে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এর বিরুদ্ধে পিটিশনে অ্যাডভোকেট সরফরাজ বলেছেন, পাকিস্তানের সুপ্রিমকোর্ট নওয়াজ শরীফকে অসততার জন্য প্রধানমন্ত্রী হিসেবে অযোগ্য ঘোষণা করেছে। সেই ব্যক্তির নামে নির্বাচন কমিশনে মুসলিম লীগ (নওয়াজ) দলের রেজিস্ট্রেশন করা রয়েছে। কিন্তু আদালত যাকে অযোগ্য ঘোষণা করায় তার নামে রেজিস্ট্রেশন করা কোনো দল নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারে না। এ প্রেক্ষাপটে কুলসুম নওয়াজের মনোনয়ন বাতিল করতে হবে।

অ্যাডভোকেট সরফরাজের দাবি- সুপ্রিম কোর্টের রায় অনুসারে নির্বাচনে ‘নওয়াজ শরীফ’ নামটি ব্যবহার করা যাবে না। গত নির্বাচনের সময় মনোনয়নপত্রে নওয়াজ শরীফ তার সম্পদের পূর্ণ তথ্য দেন নি -এমন অভিযোগে কথিত পানামা পেপার্স মামলায় দেশটির সুপ্রিম কোর্ট সম্প্রতি নওয়াজ শরীফকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে অযোগ্য ঘোষণা করেছে। তবে নওয়াজ শরীফ বলছেন, সম্পদের জন্য নয় বরং অন্য কারণে তাকে অযোগ্য ঘোষণা করা হয়েছে কিন্তু এখনই তিনি তা ফাঁস করতে চান না।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য