কুড়িগ্রামের উলিপুরে স্কুল ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় মা-ছেলেসহ একই পরিবারের চার জনকে কুপিয়ে গুরুত্বর আহত করেছে বখাটেরা। ঘটনাটি ঘটেছে, গতকাল মঙ্গলবার উপজেলার ধরনীবাড়ী ইউনিয়নের বামনেরহাট বাজার এলাকায়। এ ঘটনায় মামলা হলে পুলিশ একজনকে আটক করে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার মধুপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের স্কুল যাতায়াতের পথে দক্ষিন মধুপুর এলাকার আব্দুস সামাদের পুত্র রাসেল মিয়া (২১) ও আবুল কালামের পুত্র পারভেজ (২০) এর নেতৃত্বে একদল বখাটে প্রায় সময় ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করে আসছিল। গত মঙ্গলবার স্কুলে শেষে ছাত্রীরা বাড়ি ফেরার পথে বামনের হাট বাজার সংলগ্ন এলাকার নারায়ন চন্দ্র শীলের দোকানের সামনে প্রতিদিনের ন্যায় রাসেল, পারভেজ ও তার সহযোগিরা ছাত্রীদের নানা ভাবে উত্ত্যক্ত ও মোবাইল ফোন দিয়ে ছবি তোলার সময় একই এলাকার মহুবর রহমানের পুত্র কলেজ পড়–য়া ছাত্র জাহিদ হোসেন (২১) এর প্রতিবাদ করলে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও মারামারি হয়। এরই জের ধরে বখাটে রাসেল ও পারভেজের পরিবারের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে জাহিদের উপর হামলা চালায়।

এ সময় তাকে ছোরা দিয়ে মাথায় ও শরীরের বিভিন্নস্থানে কুপিয়ে গুরুত্বর জখম করে। খবর পেয়ে জাহিদের মা জোহরা বেগম, ছোট ভাই মাহিদ (১৫) ও শাহিন (১২) এগিয়ে আসলে তাদেরকেও কুপিয়ে জখম করা হয়। পরে এলাকাবাসী ও স্বজনরা তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। বর্তমানে তারা চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় জাহিদ হোসেনের পিতা মহুবর রহমান বাদী হয়ে রাতেই আবুল কালাম, রাসেল মিয়া ও পারভেজসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ রাতে আবুল কালামকে আটক করে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার রফিকুল ইসলাম সরদার জানান, আহত তিন ভাই জাহিদ, মাহিদ ও শাহিনের মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখম ও তাদের মা জোহরা বেগমের বাম হাতে গুরুত্বর জখম রয়েছে। বর্তমানে তারা চিকিৎসাধীন রয়েছেন। থানার অফিসার ইনচার্জ এসকে আব্দুল্যাহ আল সাইদ জানান, আটক ব্যাক্তিকে বুধবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য