মোঃ ইউসুফ আলী, আটোয়ারী (পঞ্চগড়) থেকে: “মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য, একটুখানি কি সহানুভুতি পেতে পারে না ও বন্ধু———————–। পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার মৃত তোফাজ্জল হোসেনের পুত্র আব্দুল্লাহ আল মামুন(৩৩) এর শরীরের একটি ভাল্ব জন্মগতভাবে অকেজো। প্রায় ৭/৮ বছর হতে অপর ভাল্বটিও প্রায় অকেজো হওয়ার পথে এমন কি ৭/৮ বছর থেকে ব্রেন স্টক হয়ে বর্তমানে শয্যাশায়ী। মামুনদের ভিটেবাড়ি ছাড়া আর কোন জমিজমা নেই।

মামুনের বড়ভাই আখতারুর হাসান নিজেই একজন শারীরিক প্রতিবন্ধি হওয়ার পরো শুধুমাত্র ফ্লেক্সিলোড ব্যবসা করে পরিবারের সদস্যদের ভরনপোষন চালাচ্ছেন। ফ্লেক্সিলোডের সীমিত আয়ে মানবেতর অবস্থায় সংসার চালানোর পরো আপন ছোট ভাইয়ের জীবন বাাঁচাতে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের নিউরোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা: বদরুল হাসান, রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের নিউরোলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা: এমদাদুল হক , জিয়া হার্ড ফাউন্ডেশনের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা: শফিক আহম্মেদ এবং ঢাকার ডা: নারায়ন কুন্ডুর চিকিৎসা নেয়া হয়েছে।

ডাক্তার বলেছেন,রোগীর ব্রেন স্বাভাবিক রেখে একটি ভাল্ব রিপ্লেসমেন্ট করলে রোগীকে সুস্থ্য করা সম্ভব হতে পারে, তবে মোটা অঙ্কের অর্থ ব্যয় করতে হবে। ডাক্তারের কথা শুনে রোগী মামুন আশ্বস্ত হলেও তার ভাই আখতার অর্থের বিষয়টি নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় পড়েন। আখতার জানান, আমার ভাইয়ের জীবন বাঁচাতে বিত্তবান ও হৃদয়বান ব্যক্তিদের সহযোগিতা প্রয়োজন।

শয্যাশায়ী মামুন বলেন, আপনারা আমাকে অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করেন, আমিও আপনাদের মত এ পৃথিবীতে বেঁচে থাকতে চাই। আল্লাহর অসীম রহমত আর আপনার সহানুভুতিই মামুনের প্রাণ বাঁচাতে পারে। আর্থিক সহযোগিতা ও যোগাযোগের জন্য ঃ(বিকাশ) ০১৭১২৪৮৩৬২৯, অথবা জনতা ব্যাংক আটোয়ারী শাখার সঞ্চয়ী হিসাব নং ৪৩০৯ ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য