চিরিরবন্দরে এক গৃহবধূর শ্লীলতাহানীর অভিযোগ আনয়ন করে তার স্বামী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। এ শ্লীলতাহানীর ঘটনাটি গত ১ আগস্ট উপজেলার আউলিয়াপুকুর ইউনিয়নের মহাদানী গ্রামের ঝাড়ুয়াপাড়ায় ঘটেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ওইদিন সকাল আনুমানিক সাড়ে ৮টায় ওইগ্রামের নারায়ন চন্দ্র রায়ের স্ত্রী ২ সন্তানের জননী (২৮) বাড়ির দক্ষিণ পূর্র্ব দিকে রেললাইনের ধারে ছাগল বেধে বাড়িতে আসছিল। পথিমধ্যে ওইপাড়ার মো. ময়নুদ্দিনের ছেলে ১ সন্তানের জনক জাশেদুল ওরফে রাশেদুল (৩০) ওই গৃহবধূকে কৌশলে ফুসলিয়ে তার বাড়িতে নিয়ে যায়।

তার বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে রাশেদুল ওই গৃহবধূকে পিছন দিক থেকে মুখ চেপে ধরে পাজাকোলা করে ঘরের মধ্যে চৌকির ওপরে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয় এবং ওই গৃহবধূ ঘরের বারান্দায় লুটিয়ে পড়ে যায়। এ সুযোগে রাশেদুল জোরপূর্বক ওই গৃহবধূর বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে শ্লীলতাহানী ঘটায়।

এসময় ওই গৃহবধূর আতœচিৎকারে টকি বালা রায়, প্রদীপা রানী রায়সহ এলাকাবাসি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে ঘটনা দেখতে পায়। ঘটনাস্থলে রাশেদুলের মাতা রাশেদা বেগম ওই গৃহবধূকে এলোপাথারী মারপিট ও জখম করে তাড়িয়ে দেয়।

এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর স্বামী নারায়ন চন্দ্র রায় বাদী হয়ে গত ৪ আগস্ট চিরিরবন্দর থানায় রাশেদুল ও রাশেদা বেগমের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য