দিনাজপুর সংবাদাতাঃ সারাদেশে চামড়া ব্যবসার চরম বির্পযয় ও ক্রান্তিকালের মাঝেই গতকাল অনুষ্ঠিত হলো দিনাজপুর চামড়া ব্যবসায়ী মালিক গ্রুপের ২৪তম বার্ষিক সাধারন সভা।

গতকাল সোমবার সকালে দিনাজপুর চামড়া ব্যবসায়ী মালিক গ্রুপ কার্য্যালয়ে সংগঠনের সভাপতি মোঃ তৈয়ব উদ্দীন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বার্ষিক সাধারন সভা অুষ্ঠিত হয়। দু’পর্বের অনুষ্ঠানে উদ্ভোধনী সেশনে সংগঠনের সাধারন সম্পাদক আখতার আজিজ বাষিক প্রতিবেন এবং কোষাধ্যক্ষ মোঃ মহসীন আলী সাধারন সদস্যদের মাঝে বার্র্ষিক আয়-ব্যয়ের হিসাব উপস্থাপন করেন।

সভাপতির সমাপনী বক্তব্যে তৈয়ব উদ্দীন চৌধুরী বলেন,শত প্রতিকুলতার মাঝেও আমরা চামড়া শিল্পকে বাঁচাতে এ ব্যবসাকে ধরে রেখেছি আগামীতে চেষ্টা অব্যাহত রাখবো। চামড়া ব্যবসার এমন এক ক্রান্তিকালে দেশ জাতি এবং নিজের স্বার্থ রক্ষা করেই ব্যবসা চালিয়ে যাওয়ার আহবান করেন।

সভায় সাধারন সম্পাদক আখতার আজিজ বলেন, ২০১৬ থেকে সৃষ্ট ট্যানারী স্থানান্তর নিয়ে জটিলতার অবসান হয়েছে,তবে ট্যানারী গুলো পুরোপুরি চালু হতে আরো সময় লাগবে। ইতিমধ্যে যে কয়টি ট্যানারী পুনাঙ্গ চালু হয়েছে তারা চামড়া মালিকদের বকেয়া পাওনা পরিশোধে নানা সমস্যার কথা বলছে।

তিনি বলেন,প্রত্যেক কোরবানীর ঈদের আগে এবং পরে চামড়া ব্যবসায়ীরা বকেয়া পাওনা টাকার ব্যাপারে ট্যানারী মালিক ও আড়ৎদারদের সাথে যোগাযোগের ক্ষেত্রে একরকম বিপদেই পড়ে যায়। লক্ষ করা গেছে ট্যানারী মালিকদের কাছে একবার যদি চামড়ার দাম বাকি পড়ে তাহলে পরের বছর ওই টাকা উঠানো অসম্ভব হয়ে পড়ছে। এভাবেই একসময়ে চামড়া ব্যবসায়ী মালিকদের বকেয়া পাওনা টাকা তামাদি হয়ে যায় এবং ঝড়ে পড়ে ব্যসায়ীরা,আমাদের সতর্কতার সাথে ব্যবসা চালাতে হবে।

২৪তম বার্ষিক সাধারন সভায় সাধারন সম্পাদকের রির্পোট এবং কোষাধ্যক্ষের আয় –ব্যয়ের রির্পোট সদস্যদের কণ্ঠ ভোটে পাশ হয়। সভায় মতামতসহ বক্তব্য রাখেন,সহ-সভাপতি হাজী আবেদ আলী,মোঃ মজিবর রহমান(১) সহ-সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ আলী,সহ কোষাধ্যক্ষ মোঃ আউয়াল হোসেন মিল্টন,সাধারন সদস্য জুলফিকার আলী স্বপন প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য