পুলিশ এসেছে খবর শুনেই তিন জুয়ারী তিস্তায় নদীতে ঝাঁপ দিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন। এসময় ২ জুয়ারী সাঁতরিয়ে তীরে ভীড়লেও আবুল কালাম নামের এক জুয়ারী নিখোঁজ হয়ে যায়। উলিপুর ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ নদীতে অনেক খোজাখুজির পর গতকাল সোমবার দুপুর পর্যন্ত তার লাশ উদ্ধার করতে পারেনি। ঘটনাটি ঘটেছে, উপজেলার গুনাইগাছ ইউনিয়নের নাগড়াকুড়া গ্রামের টি-বাঁধ এলাকায়।

প্রত্যক্ষদর্শি ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ড ঐ এলাকায় দর্শনীয় একটি টি-বাঁধ নির্মান করে। এ টি-বাঁধকে ঘিরে প্রতিদিন শত শত বিভিন্ন বয়সি ছেলে-মেয়ে ও নারী পুরুষ সেখানে ভীড় করতে থাকে। এ সুযোগে এলাকার একটি সংঘবদ্ধ জুয়ারী দল জুয়ার আসর বসিয়ে দর্শনাথিদের সর্বস্ব লুটিয়ে নিতে থাকে। এরকম তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ ঐ এলাকায় টহল বৃদ্ধি করে।

গত রোববার বিকেলে পুলিশের একটি টহল দল ঐ এলাকার ওযারেন্টভূক্ত আসামী ধরতে স্থানীয় নাগড়াকুড়া বাজারে যায়। এ খবর জুয়ারীদের কাছে পৌঁছিলে জুয়ারীরা পুলিশের হাত থেকে বাঁচতে নদী সাঁতরিয়ে ওপারে যেতে চাইলে ২ জুয়ারী নির্বিঘেœ ওপারে পৌঁছে যায়। কিন্তু আবুল কালাম(৪৬) পানিতে তলিয়ে নিখোঁজ হয়ে যায়। সে নেফড়া গ্রামের মৃত বাচ্চা মিয়ার পূত্র।

সোমবার সকাল থেকে ফায়ার সার্ভিস রংপুরের ডুবারুদল দুপুর পর্যন্ত অনেক খোঁজাখোজির পরও তার লাশ উদ্ধার করতে পারেনি। এ ঘটনায় টি-বাঁধ এলাকায় হাজার হাজার মানুষ ভীড় জমাতে থাকে। উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ এসকে আব্দুল্লাহ আল সাইদ বলেন, বিষয়টি দুঃখজনক, লাশ উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য