মাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁও থেকেঃ ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈলে মিটার যাচাই না করেই বিল নেয়ার অভিযোগ উঠেছে বিদ্যুৎ বিভাগের বিরুদ্ধে। এ কারণে বাড়তি বিল দিচ্ছেন বেশিরভাগ গ্রাহক। এ বিষয়ে অভিযোগ জানিয়েও সুফল মিলছে না বল্লেন অভিযোগকারী। গত ছয় মাস ধরে বিদ্যুৎ বিল নিয়ে বিড়ম্বনায় রয়েছেন রানীশংকৈল পিডিবি ও পল্লীবিদ্যুতের বেশিরভাগ গ্রাহক। ব্যবহারের চেয়ে বেশি বিল দিতে হচ্ছে তাদের। মিটার না দেখেই বিল তৈরি করছেন রিডাররা। এ বিষয়ে অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে না।

মিটার রিডারদের গাফিলতি স্বীকার করছেন বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তারা। পাশাপাশি লোকবল সংকটের কারণও দেখাচ্ছেন তারা। প্রতি ৪ গ্রাহকের জন্য মিটার রিডার থাকার কথা একজন। অথচ রানীশংকৈল অর্ধ লক্ষাধিক পিডিবি গ্রাহকের জন্য মিটার রিডার আছেন ১০জন, তিনাদের সরকারি সারকুলার মোতাবেক মিটার রিডার জনবল আছে তা থাকা সত্যেও কেন এমন হচ্ছে জানান বিষয় তবে রানীশংকৈল পল্লিবিদ্যুৎ এর বর্তমান গ্রাহক ৪২ হাজার এরও কিছু বেশি।

ওয়েস্ট পাওয়ার জোন ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি-ওজোপাডিকোর নির্বাহী প্রকৌশলীর দাবি, জনবল সংকট এবং কিছু কিছু জায়গায় বর্ষার কারণে অনেক সময় মিটার দেখে বিল করা যাচ্ছে না। তবে অভিযোগ পেলে বিল সমন্বয়ের আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। ভুতুড়ে বিলে অতিষ্ঠ রানীশংকৈল এর বেশির ভাগ গ্রাহক জানান শেষে আন্দোলন ছাড়া আর কোন উপায় দেখছিনা আমরা । ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল আর হয়রানি থেকে মুক্তি পেতে সঠিক বিল ব্যবস্থাপনার দাবি জানিয়েছে গ্রাহকেরা।

এব্যাপারে, রানীশংকৈলে দায়িতে¦ থাকা এজিএম-(ও এন এম) এহতোশামুল হক জানান, এই রুপ কিছু কথা আমার কানেও এসেছে যদি কোন গ্রাহকের এমন সমস্যা হয়ে থাকে লিখিত ভাবে ্আমাকে জানালে প্রয়োজনিয় ব্যবস্থ্যা নিবেন বলে আমাদের জানান। এবং তবে তিনি এও বলেন যে মিটার রিডারদের সমস্যা থাকতে পারে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য