উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে সর্বসম্মতিক্রমে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। গতমাসে পিয়ংইয়ং দু’টি আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর পর এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলো।

উত্তর কোরিয়ার রপ্তানি বাণিজ্যকে টার্গেট করে আরোপিত এ নিষেধাজ্ঞার ফলে দেশটির বার্ষিক ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াবে ১০০ কোটি ডলার। শনিবার রাতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে এ সংক্রান্ত ভোটাভুটিতে উত্তর কোরিয়ার সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ মিত্র চীনও নিষেধাজ্ঞার পক্ষে ভোট দেয়।

নিরাপত্তা পরিষদে পাস হওয়া প্রস্তাবে উত্তর কোরিয়া থেকে কয়লা, লোহা, লৌহ আকরিক, সিসা, আকরিক সিসা, মাছ এবং অন্যান্য সামুদ্রিক পণ্য রপ্তানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সেইসঙ্গে উত্তর কোরিয়া থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে শ্রমিক পাঠানোর ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। পাশাপাশি উত্তর কোরিয়ায় বিদেশি পুঁজি বিনিয়োগকেও এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় আনা হয়েছে।

মার্কিন সরকারের পক্ষ থেকে উত্থাপিত এ নিষেধাজ্ঞা প্রস্তাবের পক্ষে চীন ভোট দেয়ায় জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি নিজের আসন থেকে উঠে গিয়ে চীনা রাষ্ট্রদূতকে ধন্যবাদ জানান।

পিয়ংইয়ং গতমাসে দু’টি আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র বা আইসিবিএমের সফল পরীক্ষা চালায়। এরমধ্যে দ্বিতীয়টির পরীক্ষা চালানোর পর উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন ঘোষণা করেন, গোটা আমেরিকা তার দেশের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার আওতায় চলে এসেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য