অস্ট্রেলিয়ার উত্তর-পূর্ব উপকূলের সাগরে যুক্তরাষ্ট্রের একটি সামরিক বিমান বিধ্বস্তে যুক্তরাষ্ট্রের মেরিন বাহিনীর তিন সেনা নিখোঁজ হয়েছেন।

শনিবারের এ ঘটনায় নিখোঁজ সেনাদের খোঁজে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী ও মেরিন তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযান শুরু করলেও রোববার তা স্থগিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মেরিন কর্পস।

মেরিন কর্পস জানিয়েছে, উদ্ধার অভিযানের পরিবর্তে অস্ট্রেলিয়ার প্রতিরক্ষা বাহিনীর সঙ্গে যৌথভাবে তারা পুনরুদ্ধার অভিযান শুরু করেছে যা কয়েক মাস ধরে চলতে পারে। বিষয়টি নিখোঁজ তিন মেরিন সেনার নিকটাত্মীয়দের জানানো হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা।

অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ড উপকূলের শোওয়াটার উপসাগরে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। এ সময় আবহাওয়া অনূকূলে ছিল বলে জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার আবহাওয়া ব্যুরো।

দুর্ঘটনায় পড়া এমভি-২২ অসপ্রে টিল্ট-রোটর বিমানটি যুক্তরাষ্ট্রের উভচর যুদ্ধজাহাজ ইউএসএস বনহোম রিচার্ড থেকে উড্ডয়ন করেছিল। নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবে উড্ডয়ন করার পর বিমানটি সাগরে বিধ্বস্ত হয় বলে জানিয়েছে মেরিন কর্পস।

দুর্ঘটনার পরপরই বনহোম রিচার্ডে থাকা নৌকা ও আকাশযানগুলো তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযানে নেমে পড়ে। এ সময় সাগর থেকে বিমানটির ২৩ আরোহীকে উদ্ধার করা হয় বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে জাপানের ওকিনাওয়া-ভিত্তিক তৃতীয় মেরিন এক্সপেডিশনারি ফোর্স।

অস্ট্রেলিয়ার জরুরি বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এদের মধ্যে একজনকে কুইন্সল্যান্ড রাজ্যের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় শহর রকহ্যাম্পটনের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে; তবে বিস্তারিত আর কিছু জানাননি তারা।

ঘটনার বিষয়ে একটি তদন্ত শুরুর করা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মেরিন কর্পস।

অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের একটি যৌথ সামরিক প্রশিক্ষণে অংশ গ্রহণের জন্য বনহোম রিচার্ড এক্সপেডিশনারি স্ট্রাইক গ্রুপ জাপান থেকে অস্ট্রেলিয়া গিয়েছিল। দুই সপ্তাহ আগে শেষ হওয়া ওই সামরিক প্রশিক্ষণে দেশ দুটির ৩৩ হাজারেরও বেশি সেনা অংশ নেয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য