মাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁও থেকেঃ শুক্রবার সন্ধ্যায় ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা শিবগঞ্জ এলাকার বর ইউনুস আলী ডন (৩০) বৌ আনতে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি প্রায় শেষ। এ সময় হঠাৎ পুলিশের গাড়ি বরের বাড়ি হাজির। পুলিশ আসার খবর শুনা মাত্রই ইউনুস আলী দৌড়ে পালিয়ে যায়।

শুক্রবার সময় তখন সন্ধ্যা ৬ টা ২০ মিনিট। বরের বাড়িতে দু’দিন ধরে ধুমধাম আয়োজন। বরযাত্রী যাওয়ার জন্য পরিবারের সদস্য ও আতœীয়-স্বজনের মধ্যে হৈ চৈ চলছিল। কে কোন গাড়িতে যাবে তাই সবাই গাড়িতে উঠার প্রস্তুতি নিচ্ছে। বরের বাড়ির সামনের রাস্তায় ১৬টি মাইক্রোবাস কনের বাড়ি রাণীংশকৈল উপজেলার নেকমরদ যাওয়ার জন্য দাড়িয়ে আছে।

জানা যায়, ঠাকুরগাঁও রাণীংশকৈল উপজেলার নেকমরদ এলাকার মাদক ব্যবসায়ি টেক্কার মেয়ের সাথে সদর উপজেলা শিবগঞ্জ এলাকার খাদেমুল ইসলামের ছেলে মাদক ব্যবসায়ি ইউনুস আলী ডনের বিবাহের জন্য শুক্রবার দিনকাল ধার্য করে উভয়ের পরিবার।

বৃহস্পতিবার ইউনুসের গায়ে হলুদের সময় পুলিশ তাকে ধরার জন্য অভিযান চালায়। ওই সময়েও পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে শটকে পড়ে সে। আজ শুক্রবার ইউনুস বর সেজে বর যাত্রী যাওয়ার সময় যখন প্রস্তুত ঠিক সেই সময় পুলিশের একটি গাড়ি ইউনুসের বাড়ি সামনে দিয়ে যায়। এ সময় ইউনুস আবারো পুলিশের ভয়ে পালিয়ে যায়। বরযাত্রীরা প্রস্তুতি নিয়ে গাড়িতে উঠলেও রাত ৯টা পর্যন্ত বর ইউনুসকে পাওয়া যায়নি পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।

এলাকাবাসী সিরাজুল জানান, দীঘদিন ধরে ইউনুস মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত এলাকায়। শুনেছি তার বিরুদ্ধে মাদকের মামলা রয়েছে। তাই ইউনুস পুলিশ আসার খবর শুনে পালিয়েছে।

বরযাত্রী মানিক হোসেন জানান, একটা শুভ কাজে যাওয়ার সময় পুলিশ কেন আসলো বুঝতে পাচ্ছি না। এতে বর ইউনুসের পরিবার সহ আমরা হয়রানির স্বীকার হলাম।

এ ব্যাপারে বর ইউনুসের বাবা খাদেমুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, পুলিশের কারণে আমার ছেলের বিয়ে পন্ড হয়ে গেল। অবশেষে বরযাত্রীর গাড়ি গুলো বিদায় দিয়েছি। আতœীয় স্বজনদের কাছে ছোট হয়ে গেলাম বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

অপরদিকে কনের বাবা নেকমরদ এলাকার টেক্কার সাথে যোগাযোগ করা হলে মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

ঠাকুরগাঁও সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান জানান, পুলিশ আজ (শুক্রবার) সন্ধ্যায় শিবগঞ্জ এলাকা দিয়ে মোহাম্মদপুর ইউনিয়নে আটককৃত কয়েকজন জুয়ারিকে আনতে গিয়েছিল। কিন্তু কোন বিয়ে বাড়িতে পুলিশ অভিযান চালায়নি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য