আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়নের পাখেরা গ্রামের প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মওলার পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া ৩৭ শতক জমি জবর দখল করে নিয়েছে প্রভাবশালী বর্গাদাররা। ফলে সহায় সম্পদ হারিয়ে মুক্তিযোদ্ধার পরিবারটি এখন মানবেতর জীবন যাপন করছে।

এ ব্যাপারে প্রাপ্ত অভিযোগে জানা গেছে, ওই মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী খালেদা মওলা সন্তানদের লেখাপড়া ও কর্মসংস্থানের জন্য চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার বড়মা ইউনিয়নের বাইনজুড়ি গ্রামে বসবাস করে আসছিল। সেইসময় ১৯৯৩ সালে তারা উক্ত জমি ওই এলাকার আব্দুল আজিজের ছেলে আতাউর রহমান বর্গা নেয়।

বর্গা নেয়ার পর থেকেই উক্ত বর্গাদার জমিটি জবর দখল নিয়ে ভোগদখল করে আসছে। অদ্যাবধি দখলদার জমির মালিককে কোন অর্থ কিংবা ভাগের কোন ফসল দেয়নি। মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মওলার সন্তানরা ওই জমির ফসল চাইতে গেলে বর্গাদার তার সন্ত্রাসী লোকজনদের দিয়ে তাদেরকে নানা ধরণের ভয়ভীতিসহ প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। এ ব্যাপারে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পায়নি এই অসহায় পরিবারটি।

উল্লেখ্য, মুক্তিযোদ্ধা মরহুম গোলাম মওলার বিধবা স্ত্রী খালেদা মওলা মুক্তিযুদ্ধে স্বামীর সাথে অংশ নিয়েও এখন পর্যন্ত মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে কোন সুযোগ সুবিধা পাননি। এমনকি গোলাম মওলার এক নাতি মাস্টার্স ডিগ্রী পাশ করার পরও তার কোন চাকুরী হয়নি। গোলাম মওলার এক ছেলে দীর্ঘদিন যাবত দুরারোগ্য ব্যাধিতে ভুগছে।

আরেকজন শ্রবণ প্রতিবন্ধী ছেলে বেকার অবস্থায় বাড়িতে বসে দুর্বিসহ জীবন যাপন করছে। সরকারের দেয়া প্রয়াত পিতা গোলাম মওলার সামান্য মুক্তিযোদ্ধা ভাতা দিয়ে কোন রকমে মানবেতর জীবন যাপন করছে পরিবারটি। মুক্তিযোদ্ধার পরিবারটির সম্পদ উদ্ধারসহ তার বেকার সন্তানদের মুক্তিযোদ্ধা কোঠায় চাকুরী প্রদান করে তাদের দুর্ভোগের কবল থেকে রক্ষা করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা কামনা করেছে এই অসহায় মুক্তিযোদ্ধার পরিবারটি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য