রংপুর নগরের বাবুপাড়া লিচুবাগান এলাকার অটোরিকশা চালক মিলন মিয়া হত্যাকা-ে জড়িত আন্তঃজেলা ডাকাত দলের তিন সদস্যসহ চোরাই অটোরিকশা ক্রয়কারী অটো ব্যবসায়িকে গেফতার করেছে পুলিশ। এসময় হত্যাকা-ে ব্যবহৃত ছুরি ও অটোরিকশাটিও উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গেফতার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো ডাকাতদলের সদস্য নগরীর গণেশপুর বকুলতলা এলাকার আজিজুল ইসলাম স্বপন, পার্বতীপুরের ভগীবালাপাড়া এলাকার মোমিদুল ইসলাম,  কেল¬াবন্দ সিও বাজার এলাকার আবুল কাশেম এবং চোরাই অটোরিকশা ব্যবসায়ি নুরপুরের সাহেব আলী।
কোতয়ালি থানার ওসি আব্দুল কাদের জিলানী জানান, গত ২ মার্চ নগরীর শাপলা চত্তর এলাকা থেকে ডাকাতরা অটোরিকশাচালক মিলনের অটোরিকশাটি ভাড়া নিয়ে হাজিরহাট এলাকায় যান। সেখানে তারা মিলনকে কুপিয়ে হত্যা করে এবং অটোরিকশাটি রংপুর শহরে এনে চোরাই অটো ব্যবসায়ি সাহেব আলীর কাছে ৩০ হাজার টাকায় বিক্রি করে। পরের দিন পুলিশ সকালে ঘটনাস্থল থেকে মিলনের লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় মিলনের স্ত্রী নুরজাহান বেগম বাদী হয়ে কোতয়ালি থানায় মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক জানান, গ্রেফতারকৃতরা আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে রংপুর কোতয়ালি, তারাগঞ্জ, গঙ্গাচড়াসহ নীলফামারী ও দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন থানায় খুন, ডাকাতি, ছিনতাইয়ের ঘটনায় একাধিক মামলা রয়েছে। তারা মিলন হত্যার ঘটনায় নিজেদের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে বলেও জানান তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য