নীলফামারীর জলঢাকায় এক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে ওই ব্যবসায়ী। এ ঘটনায় হোটেল মালিক মমিনুর রহমান বাদী হয়ে জলঢাকা থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করেছেন।

গতকাল রবিবার সকালে পৌরশহরে ভাই ভাই হোটেলের মালিক মমিনুর রহমানকে অতর্কিত ভাবে মারধর করে ও টাকা ছিনতাইসহ হোটেলের আসবাবপত্র ভাংচুরে করে তারা। এর প্রতিবাদে সোমবার বিকালে সংবাদ সম্মেলন করা হয়। এ সময় হোটেল মালিকের ছেলে ইউনুছ আলী উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে ভাই ভাই হোটেল মালিক মমিনুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, দোকান সংলগ্ন মাংস ব্যবসায়ী মিলন আমার হোটেলে নিয়মিত মাংস সরবরাহ করতো। এই সম্পর্কের সূত্র ধরে আমার ও পরিবারের নিকট বিভিন্ন অজুহাতে সে টাকা ধার নিত। এক সময় জানতে পারি মিলন ও তার পরিবার মাদক ব্যবসার সাথে জড়িয়ে গেছে এবং সে আমার হোটেলে মাংস সরবরাহ বন্ধ করে দেয়।

তাই বাধ্য হয়ে আমার নিকট হতে হাওলাদ নেওয়া টাকা ফেরত চাইলে সে তালবাহনা করে সময় ক্ষেপন করে। উপায় না পেয়ে আমার ছেলে ইউনুছ আলী মিলনের বিরুদ্ধে একটি চেকের মামলা করে।

তিনি আরও বলেন,ঘটনার দিন আমি ক্যাশে বসা থাকলে মিলন ও তার পরিবারের সদস্যরা বলে মামলা তুলবি কিনা বল? সবার টাকা পরিশোধ করলে মামলা তুলে নিবো। এমন কথা বলতেই তারা আমার উপর ঝাপিয়ে পরে এলোপাথারি পিটাতে থাকে। এক পর্যায়ে আমি মাটিতে পরে যাই। এসময় তারা হোটেলের ক্যাশে থাকা টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং হোটেলের আসবাব পত্রে ভাংচুর চালায়।

অভিযুক্ত মাদক ব্যবসায়ী মিলনের একাধিকবার তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি। এবিষয়ে জলঢাকা থানার এস.আই মোঃ হেলাল উদ্দিন জানান, আভিযোগের বিষয়ে তদন্ত চলছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য