ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার ভাতুরিয়া-রাণীশংকৈল পাঁকা সড়কে কাঠালডাঙ্গী বাজার এলাকায় পাঁকা রাস্তার দু-ধারের সরকারি খালি জায়গা দখল করে নির্মান হয়েছে একাধিক দোকানঘর। এতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীসহ শিক্ষকমহল, পথচারি ও যান-বহন চলাচলের সময় প্রতিনিয়তই ঘটছেছোট-বড় দূর্ঘটনা।

পাঁকা রাস্তার কোল ঘেঁষে সরকারি জায়গায় অস্থায়ী ও স্থায়ী আধা-পাঁকা এব ং টিনসেডের একাধিক দোকানঘর নির্মাণ করার কারণে সড়কটি সুরু হয়ে যাওয়ার ফলে যান-বহন ক্রসিং হওয়ার সময় প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট-বড় দূর্ঘটনা। গত চার বছরের এই সড়কে তিনজনের প্রাণহানী ঘটেছে এবং অসংখ্য মানুষ গুরুত্বরভাবে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত হয়েছে। তারপরও অজ্ঞাত কারণে প্রশাসন রয়েছে নিরব।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ভাতুরিয়া-রাণীশংকৈল সড়কে কাঠালডাঙ্গী বাজার এলাকায় পাঁকা রাস্তার কোল ঘেঁষে এমনকি পাঁকা রাস্তার এক ফিট উপরে স্থায়ী ও অস্থায়ী একাধিক দোকান ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। এলাকাবাসী ও প্রশাসনকে তোয়াক্কা না করে সরকারি জায়গায় দোকানঘর নির্মাণ করে তারা তাদের ব্যবসা রমরমাভাবে চালিয়ে যাচ্ছে। এর ফলে স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রী, হাটের মানুষজন ও যানবহন সড়কটিতে চলাচলের সময় কেউ না কেউ প্রতিদিনই দূর্ঘটনার সম্মুখীন হচ্ছে। এমনকি কারো প্রাণহানী ঘটছে। এলাবাসী ও পথচারীরা এই দূর্ঘটনার জন্য দায়ী করছে ঐসব দোকান মালিক এবং প্রশাসনকে।

কাঠালডাঙ্গী ডিগ্রী কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি ও বিশিষ্ট আইনজীবি সোহরাব প্রধান বলেন, রাস্তা কোল ঘেঁষে দোকানঘর নির্মাণ করার ফলে এক সাথে দুটি গাড়ি ক্রসিং হওয়ার কোন সুযোগ নেই। তিনি আরো বলেন কাঠালডাঙ্গী বাজার সংলগ্ন এলাকায় কেবি ডিগ্রী কলেজসহ আশেপাশে একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। সেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাতায়াতের প্রধান পথ হচ্ছে এই সড়কটি।

আর এই সড়কের দুইধারের খালি জায়গায় দোকান ঘর নির্মাণ করার ফলে ছাত্র-ছাত্রীসহ শিক্ষকদের সবসময় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিনই চলাচল করতে হয়। তাই ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক ও পথচারীদের যাতায়াতের সুবিদ্বার্থে অবৈধভাবে নির্মাণ করা ঐসব দোকান উৎচ্ছেদ করতে স্থানীয় প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছি।

কাঠালডাঙ্গী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ রিয়াজুল ইসলাম বলেন, রাস্তা কোল ঘেঁষে দোকানঘর নির্মাণ করার কারণে সেখানে যানজটের সৃষ্টি হওয়ার ফলে ছাত্র-ছাত্রীসহ শিক্ষকদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সময়মতো উপস্থিত হতে পারে না। তাই অতিশীঘ্রই এই রাস্তাটি দুইধারে অবৈধভাবে গড়ে উঠা দোকানপাট উৎচ্ছেদ করা জরুরী প্রয়োজন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার এমজে আরিফ বেগ বলেন, সরকারি রাস্তার খালি জায়গায় কেউ দোকানঘর নির্মাণ বা কোন স্থাপণা তৈরি করে থাকেন তাহলে অতিশীঘ্রই তা আইন প্রয়োক্রিয়ার মাধ্যমে তাদের উৎচ্ছেদ করা হবে।
ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষকমহল, পথচারী ও সড়ক দূর্ঘটনায় আহত ব্যক্তিরা অবৈধভাবে গড়ে উঠা দোকানগুলোকে উৎচ্ছেদ করার জন্য স্থানীয় প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য