রজব আলী, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) থেকেঃ দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড এর অধিনে অনুষ্ঠিত ২০১৭ সালের এইচএসসি পরিক্ষার ফলাফলে একাধিক বিষয়ে সৃজনশীল পরিক্ষার নম্বরপত্রে শুন্য শুন্য নম্বর দেয়া হয়েছে, এতে হতভম্ব হয়ে পড়েছে শিক্ষক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগণ।

পরিক্ষকের দায়ীত্ব পালনকারী অধিকাংশ শিক্ষকগণ বলছেন, সৃজনশীল পরিক্ষায় শুন্য শুন্য নম্বর দেয়ার কোন সুযোগ নাই।

বৃহস্পতিবার দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার একটি কম্পিউটার এন্টার নেটের দোকানে কয়েক জন এইচএসসি পরিক্ষার্থী তাদের পরিক্ষার ফলাফল পূনঃবিবেচনা করার আবেদন করতে আসে, তাদের সাথে কথা বলে জানাযায়, এইবারের এইচএসসি পরিক্ষার ফলাফলে, তাদের ফলাফল অকৃতকার্য্য দেখিয়েছে, এর পর তারা ইন্টার নেটের মাধ্যমে পরিক্ষার নম্বরপত্র সংগ্রহ করে দেখতে পায়, সৃজনশীল পরিক্ষার নম্বরপত্রে শূন্য শূন্য নম্বর লেখা আছে, এতে তারা হতভম্ব হয়ে পড়ে, অবশেষে তারা ওই বিষয়ের ফলাফল পুনঃ বিবেচনার জন্য বোর্ডের নিকট আবেদন করছেন।

কয়েকজন ইন্টার নেটের দোকান্দারের সাথে কথা কলে জানা গেছে, চলতি জুলাই মাসের গত ২৩ তারিখে এইচএসসি পরিক্ষার ফলাফল ঘোষনা হয়, এর পর গত ২৪ জুলাই থেকে, গতকাল বৃহস্পতিবার (২৭ জুলাই)পর্যন্ত, কয়েক’শ সিক্ষার্থী তাদের ফলাফল পূনঃ বিবেচনার জন্য আবেদন করেছেন, আবেদন করা অধিকাংশ শিক্ষার্থীর ফলাফলে দেখা যায়, তাদের সৃজনশীল পরিক্ষায় শুণ্য শুন্য নম্বর দেয়া আছে, যা সৃজন নিয়মের একবারে পরিপন্থি।

এদের মধ্যে অনেক সম্ভাবনাময় শিক্ষার্থীও আছে। কয়েকজন পরিক্ষক ও প্রধান পরিক্ষকদের সাথে কথা বলে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তারা বলেন সৃজনশীল পরিক্ষায় শূন্য শূন্য নম্বর দেয়ার কোন সুযোগ নাই, অথচ পরিক্ষার ফলাফল নম্বরপত্রে শূন্য শূন্য নম্বর দেখা যাচ্ছে।

এই বিষয়ে দিনাজপুর শিক্ষা বোডের একাধিন কর্মকর্তার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তারা কেউ এই বিষয়ে কথা বলতে চাননি। তবে বোর্ডের কর্মকর্তারা বলছেন পুনঃ বিবেচনার আবেদন করলে বিষযটি তদন্ত করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য