ভারতের গুজরাট রাজ্যের একটি গ্রাম থেকে বন্যার পানি নেমে যাওয়ার পর এক পরিবারের ১৭ জনের লাশ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

“তারা সবাই বন্যার পানিতে ডুবে মারা গেছে বলে মনে হচ্ছে। আবর্জনাময় কাদার মধ্য থেকে লাশগুলো উদ্ধার করা হয়েছে,” ঘটনাস্থল থেকে আন্তর্জাতিক এক বার্তা সংস্থাকে বলেছেন পুলিশ পরিদর্শক এবি পারমার। এরা সবাই এক পরিবারের সদস্য বলে জানিয়েছেন তিনি।

এদের নিয়ে বন্যায় বুধবার পর্যন্ত রাজ্যটিতে মৃতের সংখ্যা ১১০ জন ছাড়িয়েছে বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

রাজ্যের বনসকন্ঠ জেলায় এক পরিবারের ওই সদস্যদে মৃতদেহ খুঁজে পাওয়ার ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন গুজরাট সরকারের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা পঙ্কজ কুমার।

বুধবার গুজরাটের রাজ্যের জরুরি পরিস্থিতি বিষয়ক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, মঙ্গলবার দিবাগত রাতে উদ্ধারকর্মীরা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলো থেকে আরো অন্তত ১২টি লাশ খুঁজে পেয়েছে।

সরকারি হিসাবে বন্যায় রাজ্যটিতে মৃতের সংখ্যা ১১১ জনে দাঁড়িয়েছে। এ পর্যন্ত ৩৬ হাজারেরও বেশি মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এখনও যারা বিচ্ছিন্ন অবস্থায় আটকা পড়ে আছেন, নৌকা ও হেলিকপ্টার যোগে তাদের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

মঙ্গলবার হেলিকপ্টার যোগে গুজরাটের বন্যাদুর্গত এলাকাগুলোর পরিস্থিতি ঘুরে দেখেছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় আসাম রাজ্যেও বন্যা দেখা দিয়েছে। সেখানে বন্যায় অন্তত ৭৫ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং লাখো একর জমির ফসল নষ্ট হয়েছে বলে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য