দিনাজপুর সংবাদাতাঃ মননের কবি রবীন্দ্রনাথ, রাজনীতির কবি বঙ্গবন্ধু এবং উন্নয়নের কবি শেখ হাসিনা-একথা আজ মানুষের মুখে মুখে। কেননা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত দিয়ে যত উন্নয়ন হয়েছে-স্বাধীনতার পর থেকে এতো উন্নয়ন আর হয়নি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন শুধু কোন একটি দিকে নয়, তিনি আইটি থেকে শুরু করে পরিবেশসহ সর্বক্ষেত্রে উন্নয়নের এক মহাযজ্ঞ সম্পাদনের কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি সবাইকে গাছ লাগিয়ে পরিবেশ রক্ষার জন্য উদ্ভুদ্ধ করছেন। গাছ পরিবেশের বন্ধু-কথাটি অতি পুরাতন।

এই পুরাতন কথাটি যখন মানুষ ভূলতে বসেছে, ঠিক তখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবার হাতে হাতে গাছ পৌছে দিয়ে গাছ লাগানোর প্রতি মানুষকে আকৃষ্ট করছেন। আমাদের দেশ আমাদের পরিবেশ আমাদেরকেই রক্ষা করতে হবে। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় গাছের কোন বিকল্প নেই। তাই প্রত্যেককে গাছ লাগিয়ে পরিবেশের সাথে নিবিড় বন্ধুত্ব গড়ে তুলতে হবে।

২৪ জুলাই সোমবার শহরের রামনগর মদীনা মসজিদ মোড়স্থ মুরব্বী ছাউনি (লাল ঘর) আয়োজিত ও বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলার সহযোগিতায় বৃক্ষরোপন কর্মসূচীর উদ্বোধনকালে বক্তারা উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। বৃক্ষরোপন পূর্ব আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডাঃ মওলা বক্স চৌধুরী। এতে উদ্বোধক ছিলেন দিনাজপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফরিদুল ইসলাম।

মুরব্বী ছাউনি (লাল ঘর)-এর সভাপতি আলহাজ্ব সাদেক মিয়ার সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কিশোর কুমার রায়, বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলার কেন্দ্রীয় মুখপাত্র ও সিনিয়র সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান জুয়েল, লালঘরের উপদেষ্টা ও সাবেক কমিশনার হারুনুর রশীদ রাজা, বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহজাহান নোবেল, সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম লিটন, শহর আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক মাসুদ রানা প্রমূখ।

লাল ঘরের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেনের সঞ্চালনায় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন লালঘরের সহ-সভাপতি রমজান আলী, রিনা খাতুন, সাজ্জাত হোসেন, রিয়াজুল ইসলাম, পাপ্পা চক্রবর্তী, শাকিল খান, বেলাল হোসেন প্রমূখ। পরে লালঘর প্রাঙ্গণে অতিথিবৃন্দ একটি গাছের চারা রোপনের মাধ্যমে কর্মসূচীর শুভ সুচনা করেন। এরপর এলাকাবাসীর মাঝে বিনামূল্যে বিপূল সংখ্যক ফলজ-বনজ ও ঔষধী গাছের চারা বিতরণ করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য