মোঃ নুর ইসলাম, দিনাজপুর থেকেঃ উত্তর জনপদের স্বনাম ধন্য কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দিনাজপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে সুষ্ঠ ও সুন্দর পরিবেশ বিরাজ করছে। সবুজ শ্যামল পরিবেশ নির্মল বাতাসে ক্যাম্পাস হয়ে উঠেছে দৃষ্টি নন্দন। গেটে ঢুকতেই মন জুড়িয়ে যে কার। নকল মুক্ত, কাগজ মুক্ত, হাতঘড়ি মুক্ত ও শব্দ বিহীন পরিবেশে অনুষ্ঠিত হচ্ছে পরীক্ষা। বাইরে থেকে বোঝার উপায় নেই এই প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৩ হাজার পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিচ্ছে। যেন এক নিরিবিলি শান্ত পরিবেশ।

দিনাজপুর শহরের প্রাণ কেন্দ্রে নিমনগর বালুবাড়ীতে প্রায় ১৬ একর জায়গা জুড়ে দিনাজপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউ অবস্থিত। ১৯৬৪ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে সুনামের সাথে শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। বর্তমানে ছয়টি টেকনোলজিতে ছাত্রছাত্রী ভর্তি হয়ে শিক্ষা গ্রহণ করছে। টেকনোলজিগুলো হচ্ছে ১। সিভিল, ২। ইলেকট্রিক্যাল, ৩। মেকানিক্যাল, ৪। পাওয়ার, ৫। কম্পিউটার, ৬। আর্কিটেকচার এ্যান্ড ইন্টেরিয়র ডিজাইন।

প্রতিটি বিভাগে দুইটি গ্রুপে ১ম ও ২য় শিফট মিলে ২০০ জন ছাত্রছাত্রী ভর্তি করানো হয়। ছাত্রছাত্রীদের ত্বাত্তিক এবং ব্যবহারিক ক্লাসের জন্য পর্যাপ্ত ক্লাসরুম এবং আধুনিক যন্ত্রপাতি সম্বলিত ওয়ার্কসপ, ল্যাব রয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের অভিজ্ঞ ও দক্ষ শিক্ষক মন্ডলী দ্বারা সুষ্ঠভাবে হাতে কলমে পাঠদান দেওয়া হয়। শিক্ষকেরা ডিজিটাল কন্টেইন তৈরী করে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর এর মাধ্যমে ক্লাস পরিচালনা করছেন।

পরীক্ষার পরিবেশ খবুই ভাল । নকল মুক্ত, কাগজ মুক্ত, হাতঘড়ি মুক্ত ও শব্দ বিহীন পরিবেশে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ছাত্রছাত্রীদের ফলাফলে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড এ সদা সর্বদা ১থেকে ২০ এর মধ্যে প্রাপ্ত সর্বোচ্চ জিপিএ এর সংখ্যার আধিক্য অব্যাহত ভাবে অর্জন করে আসছে। দেশে-বিদেশে সরকারি ও বেসরকারি সকল ক্ষেত্রে সুনামের সাথে বিশেষ অবদান রাখার পাশা-পাশি নিজস্ব শিল্প প্রতিষ্ঠান এর মালিক হয়ে কর্মসংস্থানের দৃষ্টিতে বিশেষ অবদান রাখছে। এই প্রতিষ্ঠান থেকে পাশ করে অধ্যক্ষ এবং উপাধ্যক্ষ হিসাবে দক্ষতার সহিত কর্মসম্পাদন করছে।

অধ্যক্ষ হিসাবে প্রকৌশলী মোঃ মোসলিম উদ্দীন ও উপাধ্যক্ষ হিসাবে ড. প্রকৌশলী মোঃ রুহুল আমিন অত্যন্ত দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন। অধ্যক্ষ হিসাবে প্রকৌশলী মোঃ মোসলিম উদ্দীন যোগদানের পর থেকে ইনস্টিটিউটে চেইন অব কমান্ড গড়ে তুলেছেন। প্রতিটি পদক্ষেপ বাস্তবায়িত হচ্ছে সুষ্ঠ ও সুন্দর ভাবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য