মো: ইউসুফ আলী, আটোয়ারী (পঞ্চগড়) থেকেঃ প্যঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার বলরামপুর মৌজার ২৪শতক জমি আদালতের নির্দেশে ১৪৪ ধারা জারী করার খবর পাওয়া গেছে।

মামলার বাদী বলরামপুর গ্রামের মরহুম ইদ্রিস আলীর ছেলে মোঃ হালিমউদ্দীন বলেন, বলরামপুর মৌজার জে,এল,নং- ৫৯, খতিয়ান নং সাবেক ৩০৫, হাল ৩৩১, দাগ নং ১১৯৪, জমির পরিমাণ- ১২ শতক এবং খতিয়ান নং সাবেক ২৯৫, হাল ৩২১, দাগ নং ১১৯৯, জমির পরিমাণ- ১২ শতক, সর্বশেষ মাঠজরিপের ভিপি খতিয়ান নং- ৩৫২, দুই খতিয়ানে সর্বমোট ২৪ শতক জমি ক্রয় করে ৩৫ বছর ধরে শান্তিপুর্ণ ভাবে ভোগ-দখলে আছি।

সম্প্রতি ২য়পক্ষ বলরামপুর গ্রামের জহুর আলীর পুত্র ও পুত্রবধু যথাক্রমে সাদেকুল ইসলাম, নুর আলম নুরু, নাসরিন আক্তার ও রহিমা খাতুন আমাদের দখলীয় মেহগনি বাগানে জমাজমি পাবে বলে বিশৃংখলা সৃষ্টি করছে।

তাই বাধ্য হয়েই বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত, পঞ্চগড়ে গত ১৬জুলাই/১৭ইং তারিখে একটি এম,আর (১৪৫/২০১৭) মামলা করি। আদালত সন্তুষ্ট হয়ে নালিশী জমিতে ১৪৪ ধারা জারী করেছে।

আটোয়ারী থানার এ,এস আই মোঃ আঃ হালিম (১৯জুলাই) সরেজমিনে নোটিশ জারী করার সময় বলেন, বিরোধীয় জমিটি বর্তমানে হালিমউদ্দীন এর দখলে আছে। আদালতের নির্দেশে শান্তি-শৃংখলা বজায় রাখার স্বার্থে পরবর্তীতে আদালতের নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত উভয় পক্ষকে জমিতে হস্তক্ষেপ না করার জন্য নোটিশ জারী করে স্বাক্ষর নিয়েছি।

এ ব্যাপারে ২য়পক্ষ সাদেকুল ইসলাম বলেন, উল্লেখিত জমি হালিমউদ্দীনের দখলেই আছে। আমি কতিপয় ওয়ারিশের কাছে কিনে নিয়ে দখলের চেষ্টা করছি। বিরোধীয় জমি ব্যাপারে স্থানীয় ইউ,পি সদস্য মোঃ হাবিবুল্লাহ বলেন, বিরোধীয় ২৪শতক জমি বর্তমানে হালিমউদ্দীনের দখলেই আছে।

সাদেকুল কতিপয় ওয়ারিশের কাছে কিনে দখল করার চেষ্টা করছে মাত্র। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় ভাবে আপোষের চেষ্টা করেছি। সমঝোতা না হওয়ায় বিষয়টি আদালতে গেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য