আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট প্রতিনিধি: শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক বলেছেন,বর্তমান সরকার শ্রমিক বান্ধব সরকার। বিগত জোট সরকারের আমলে অনেক কলকারখানা বন্ধ করে লাখ লাখ শ্রমিক কর্মচারী রুজি রোজগারের পথ বন্ধ করে দিয়েছিল। আ’লীগ সরকার ক্ষমতায় এসে বন্ধ কলকারখানা চালু করেছে।

শ্রমিক কর্মচারীর বেতন ভাতা বৃদ্ধি গার্মেন্টস শ্রমিকদের বেতন নির্ধারিত করা এমনকি সরকারী কর্মচারীদের নববর্ষের উৎসব প্রদানের মাধ্যমে নজির বিহীন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

তিনি বৃহস্পতিবার দুপুরে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসকের কক্ষে গত(২৪ জুন) রংপুরের পীরগঞ্জে সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত গার্মেন্টস শ্রমিকদের পরিবার সদস্য ও আহত শ্রমিকদের মাঝে অনুদানের চেক বিতরণ এবং সিলোকসিস রোগপ্রতিরোধ বিষয়ক উদ্বুদ্ধকরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। নিহত ও আহত শ্রমিকরা লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ ও আদিতমারীর উপজেলার বাসিন্দা ।

সভায় ১৭ জন নিহত শ্রমিক পরিবার ও ১৬ জন আহত শ্রমিকের প্রত্যেককে ৫০হাজার টাকার অনুদানের চেক প্রদান করা হয়। পর্যায়ক্রমে নিহত পরিবারের মাঝে ৪ লাখ ও আহত শ্রমিকদের ২ লাখ টাকা প্রদান করা হবে।সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক আবুল ফয়েজ মোঃ আলাউদ্দিন খান, বক্তব্য রাখেন জাতীয় সংসদ সদস্য এ্যাড. সফুরা বেগম রুমি, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয় সচিব মিকাইল শিপার, অতিরিক্ত সচিব ও কলকারখানা পরিদর্শন দপ্তরের মহা পরিদর্শক শামসুজ্জামান ভূইয়া, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাড. মতিয়ার রহমান, পুলিশ সুপার এস এম রশিদুল হক, বিজিএমই সহ-সভাপতি আব্দুল মান্নান কচি, ক্যাপ্টেন (অব) আজিজুল হক বীর প্রতীক, মেয়র রিয়াজুল ইসলাম রিন্টু, পাটগ্রাম উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বাবুল, বুড়িমারী ইউপি চেয়ারম্যান নিশাত, কালীগঞ্জ উপজেলার গোড়ল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাহমুদুল ইসলাম, চন্দ্রপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, সাংবাদিক আনিছুর রহমান লাডলা প্রমুখ।

এ সময় শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়ের উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তা, গণপ্রতিনিধি, সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ও আহত পরিবারের সদস্য বৃন্দ ও সাংবাদিক বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য