বিরল উপজেলায় দুই ভুয়া চক্ষু চিকিৎসককে আটক করেছে স্থানীয় জনতা। এদের মধ্যে একজনকে র‌্যাব-১৩ এর একটি টহল দল নিয়ে গেছে।

জানা গেছে, রবিবার সকালে উপজেলার ধর্ম্মপুর ইউপি’র কালিয়াগঞ্জ বাজারে চক্ষু চিকিৎসা দেয়ার নাম করে স্থানীয় জবেদ আলীর ফার্মেসীতে বসে বিভিন্ন রোগীর ২শ’ টাকা ফি নিয়ে চিকিৎসা শুরু করেন এক ব্যাক্তি।

এ সময় স্থানীয় লোকজনের সন্দেহ হলে তার কাছে চিকিৎসকের প্রমাণ পত্র দেখতে চাইলে সে দেখাতে না পারার কারণে তাকে আটক করে ইউপি চেয়ারম্যানের নিকট সোর্পদ করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসা বাদে আটক ভূয়া চিকিৎসক জানায়, সে দিনাজপুর কতোয়ালী থানা এলাকার বালুবাড়ী মহল্লার পানির ট্যাংকি রোডের আহমেদ ভিলার আমজাদ চৌধুরীর পুত্র রেজাউল ইসলাম চৌধুরী (৩৫)। তার গ্রামের বাড়ী জেলার কাহারোল উপজেলার ইছাইল গ্রামে হলেও সে কাহারোল উপজেলা সদরের পাইকপাড়া এলাকায় বসবাস করতো।

তার কোন ডিগ্রি না থাকলেও সে বিভিন্ন এলাকায় পূর্বে মাইকিং করে প্রচার করে চক্ষু চিকিৎসার নামে মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছিল। বিকালে এরিপোর্ট লিখা পর্যন্ত ঐ ভূয়া চিকিৎসক ও তার স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন ধর্ম্মপুর ইউনিয়ন পরিষদে আটক থাকলেও র‌্যাব-১৩ এর একটি টহল দল এসে তাকে পরিষদ থেকে নিয়ে গেছে বলে ইউপি সদস্য বিপ্লব নিশ্চিত করেছে।

এ ব্যাপারে বিরল থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ আবদুল মজিদ জানান, থানায় এ বিষয়ে কোন অভিযোগ এ পর্যন্ত পাননি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য