আটোয়ারী (পঞ্চগড়) সংবাদাতাঃ মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে পঞ্চগড়ের আটোয়ারীতে ধর্মঘট পালন করছে দর্জি শ্রমিকরা। দীর্ঘ প্রায় এক সপ্তাহ ধরে বন্ধ রয়েছে সকল প্রকার পোশাক তৈরির কাজ। নতুন পোশাক না পেয়ে ছাত্রÑছাত্রী থেকে নব দম্পতিরা পড়েছেন বিপাকে।

মজুরী বৃদ্ধির দাবীতে উপজেলার প্রধান বাণিজ্য কেন্দ্র ফকিরগঞ্জ বাজারের দর্জি কারিগর সমিতির ডাকে গত ১০ জুলাই হতে পোশাক তৈরীর কারিগর ও শ্রমিকরা ধর্মঘট শুরু করে। প্রায় অর্ধ শতাধিক দোকান ও কারখানায় কর্মরত পোশাক শ্রমিক কর্মবিরতি পালন করছেন। তারা শত অভাব সত্যেও কোন প্রকার নতুন জামা-কাপড় তৈরীর কাজ করছেন না।

সমিতির সভাপতি মেরাজ উদ্দীন জানান, গত কয়েক মাসে বাজারে চাল সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি পেলেও পোশাক তৈরীর শ্রমিকদের মজুরী বৃদ্ধি হয়নি। সাধারণ সম্পাদক মোঃ জুলফিকার রহমান জানান, টেইলার্স মালিকদের প্রদেয় মনগড়া পারিশ্রমিকে শ্রমিকরা চলতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন।

এ অবস্থায় দীর্ঘদিন হতে মজুরি বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে আসছেন দর্জি কারিগররা। কিন্তু টেইলার্স মালিকরা সে দাবি প্রত্যাখ্যান করেই চলেছেন। ফলে কারিগরেরা মজুরি বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে ১০ জুলাই হতে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট শুরু করে।

দর্জি কারিগর শ্রমিক সমিতির সভাপতি মেরাজ উদ্দীন জানান, সাম্প্রতিক সময়ে চাল সহ বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিষের দাম যেভাবে বাড়ছে সে হিসেবে টেইলার্স মালিকরা মুজুরী হিসেবে যা নিচ্ছে তার অর্ধেক শ্রমিকদের পরিশোধ করতে হবে। অন্যথায় ধর্মঘট অব্যাহত থাকবে।

অপরদিকে টেইলার্স মালিক সমিতির সভাপতি মিজানুর রহমান জানান, শ্রমিকদের জীবন যাত্রার কথা বিবেচনা করে প্রায় ১ বছর পূর্বে শ্রমিক মজুরী বৃদ্ধি করা হয়। এমুহুর্তে আবার মজুরী বৃদ্ধির দাবী অযৌক্তিক।

উল্লেখ, এখানে প্রতিটি ফুল প্যান্টের সেলাই নেওয়া হয়- ৩০০টাকা- শ্রমিকদের দেয়া হয় ১১০ টাকা, শার্টের সেলাই নেওয়া হয়- ২৫০ টাকা- মুজুরী দেওয়া হয় ৫৮ টাকা, থ্রি-পিচের সেলাই নেওয়া হয় ২৫০টাকা- মুজুরী দেওয়া হয় ৫৮, পাঞ্জাবীর সেলাই নেওয়া হয় ৩০০- মুজুরী দেওয়া হয় ৮০, মেক্সির সেলাই নেওয়া হয় ১৫০ টাকা- মুজুরী দেওয়া হয় ৩০ টাকা, পায়জামার সেলাই নেওয়া হয় ৮০- মুজুরী দেওয়া হয় ২২ টাকা, কামিজের সেলাই নেওয়া হয় ১০০ টাকা- মুজুরী দেওয়া হয় ৩০ টাকা, ব্লাউজের (সিঙ্গেল) সেলাই নেওয়া হয়- ১০০ টাকা- মুজুরী দেওয়া হয় ২৫ টাকা, ব্লাউজের (ডাবল) সেলাই নেওয়া হয়-২৫০ টাকা- মুজুরী দেওয়া হয় ৫৫ টাকা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য