ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরের ত্রালে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ২ গেরিলা নিহত হয়েছে। আজ (শনিবার) সকালে পুলওয়ামা জেলার ত্রালে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ওই গেরিলারা নিহত হয়।

গেরিলারা ওই এলাকায় লুকিয়ে রয়েছে এমন খবর পাওয়ার পর নিরাপত্তা বাহিনী আজ সেখানে তল্লাশি অভিযান চালায়। গেরিলাদের বিরুদ্ধে সেনাবাহিনী, আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফ ও পুলিশের বিশেষ দল যৌথভাবে ত্রালের সতুরা গ্রামের সংশ্লিষ্ট এলাকা ঘিরে ফেলে। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে বন্দুক যুদ্ধ শুরু হয়।

নিহত গেরিলারা জৈশ ই মুহাম্মদ সদস্য বলে এক কর্মকর্তা জানান। নিরাপত্তা বাহিনী বলছে, ওই এলাকায় অন্য সন্ত্রাসীরা লুকিয়ে থাকায় তাদের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে।

সম্প্রতি অমরনাথ তীর্থযাত্রীদের উপরে হামলা চালানো সন্ত্রাসীদের ধরার জন্য নিরাপত্তা বাহিনী কাশ্মিরে বড়সড় অভিযান শুরু করেছে।

একটি সূত্রে প্রকাশ, ওই ঘটনায় ৩ সন্ত্রাসী যুক্ত ছিল। এছাড়া স্থানীয় এক মাঠ পর্যায়ের কর্মীও এতে শামিল ছিল।

আজ গণমাধ্যমে প্রকাশ, তীর্থযাত্রীদের উপরে হামলার ঘটনায় মাস্টারমাইন্ড লস্কর ই তাইয়্যেবা সদস্য আবু ইসমাইলসহ অন্য দু’জন। নিরাপত্তা বাহিনী আবু ইসমাইলকে ধরার জন্য পুলওয়ামা এবং সোপিয়ান এলাকায় জোরালো তল্লাশি চালাচ্ছে। এছাড়া ওই ঘটনায় কুলগামের বাসিন্দা আজাদ মালিক ও অনন্তনাগের বাসিন্দা মুজাম্মিল মনজুর যুক্ত ছিল বলে নিরাপত্তা বাহিনী জানতে পেরেছে।

জম্মু-কাশ্মিরে চলতি বছরের ১২ জুলাই পর্যন্ত নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে ১০২ গেরিলা নিহত হয়েছে। এর আগে গত ২০১০ সালে জানুয়ারি থেকে জুলাই পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি ১৫৬ জন গেরিলা নিহত হয়েছিল। গতবছর ওই সময়ের মধ্যে এই সংখ্যা ছিল মাত্র ৭৭।

গত জুন মাসে সেনাবাহিনী ছবিসহ ১২ জন শীর্ষ গেরিলার হিট লিস্ট প্রকাশ করেছে। নিরাপত্তা বাহিনী তাদের নির্মূল করার জন্য জোরালো অভিযান চালাচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য