দিনাজপুর সংবাদাতাঃ কিডনিতে পাথর হওয়া নিয়ে ভুয়া রিপোর্ট দেয়ায় ল্যাব-এইডের অপচিকিৎসার অভিযোগে দিনাজপুরে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগি রোগির স্বজনরা।

বৃহস্পতিবার (১৩ জলাই) সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাবে এই সংবাদ সম্মেলনে অভিযোক করা। সংবাদ সম্মেলনে অপচিকিৎসার শিকার নাসিম নামে এক অভিভাবক লিখিত বক্তব্যে জানান, কিডনির সমস্যার কারনে গত ১২ জুন তার স্ত্রী মুক্তিকে তিনি ল্যাব-এইডের দিনাজপুর শাখায় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করান।

সেখান থেকে তাকে রিপোর্ট দেয়া হয় যে, তার স্ত্রীর বাম কিডনিতে ১.৩ সে.মি পাথর আছে। পরে তার সন্দেহ হলে তিনি স্ত্রীকে ঢাকাস্থ পপুলার ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে নিয়ে যান। গত ৯ জুলাই তার স্ত্রীর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করালে সেখান থেকে তাকে রিপোর্ট দেয়া হয় যে, কিডনিতে কোন পাথর নেই এবং কিডনিতে কোন সমস্যা নেই।

তিনি জানান, মানুষ অসুস্থ্য হলে আমরা বিভিন্ন ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে রোগ নির্র্ণয় করি। কিন্তু দিনাজপুরের ল্যাব-এইডের এই ধরনের অপচিকিৎসার কারনে বিভিন্ন রোগী নাজেহাল হচ্ছে। একইসাথে ব্যয় হচ্ছে অর্থ। যা চিকিৎসার নামে অবৈধ ব্যবসা। এ ধরনের পরীক্ষার রিপোর্ট প্রদানের কারনে উক্ত ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে প্রশাসনিকভাবে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা এবং এর প্রতিকারের সুষ্ঠু দাবি জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী সুশান্ত নারায়ন ঘোষ, আবুল কালাম আজাদ, শাহ রেজাউর রহমান হিরু, শফিক, অরুন ঘোষ প্রমুুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য