দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার সরঞ্জা আদিবাসি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় নানা সমস্যায় জড়জড়িত। তিনজন শিক্ষক থাকলেও ১২ দিন হতে সহকারী শিক্ষিকা ছুটি ছাড়াই অনুপস্থিত রয়েছে।

অনুপস্থিত এর কারণে স্কুলের শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া ব্যহত হচ্ছে। সরঞ্জা আদিবাসি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ তারেুল ইসলাম জানান সহকারী শিক্ষিকা পাপিয়া সুলতানা ১ জুলাই হতে ১৩ জুলাই বৃহস্পতিবার পর্যন্ত স্কুলে উপস্থিত ছিলেন না।

তিনি আরও জানান, পাপিয়া সুলতানার সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে তিনি পাননি। এদিকে গতকাল কাহারোল উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আফজাল হোসেন আমাদের প্রতিনিধিকে জানান, প্রধান শিক্ষক মোঃ তাহেরুল ইসলামকে টেলিফোনে বলা হয়েছে স্কুল সহকারী শিক্ষিকা ছুটি ছাড়াই রয়েছে, সেই বিষয়ে যাবতীয় তথ্য পাঠানোর জন্য।

সরঞ্জা আদিবাসি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কাগজে কলমে ৬০ জন শিক্ষাথী রয়েছে, বাস্তবে গতকাল ১২ জুলাই সকাল ১১টা থেকে বিকাল ১.৩০ মিনিট পযন্ত শিক্ষাথীর সংখ্যা ৩০ জন উপস্থিত ছিল। প্রধান শিক্ষককে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন বৃষ্টির কারণে অনেকে আসেনি।

এলাকাবাসী ও অভিভাবকরা জানান স্কুলে যাতায়াতের রাস্তা না থাকার কারণে শিক্ষাথীরা স্কুলে যেতে পারে না। নাম না প্রকাশ করা সত্তে একজন শিক্ষাথী জানান শিক্ষকেরা স্কূলে ক্লাস ঠিক মত নেন না এবং সময়মত স্কুলে উপস্থিত হন না।

লেখাপড়ার মান নিয়ে খোদ প্রশ্ন তুলেছেন অভিভাবকেরা। অভিভাকদের দাবী সরকার যেখানে লেখাপড়ার জন্য লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ করছেন অথচ সেখানে সরঞ্জা আদিবাসী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে লেখাপড়ার মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন খোদ এলাকাবাসী।

বর্তমানে ৩ জন শিক্ষক থাকলেও ১ জন শিক্ষক ১২ দিন হতে ছুটি ছাড়াই স্কুলে অনুপস্থিত রয়েছেন। যে ২ জন শিক্ষক রয়েছেন তারা সময়মত স্কুলে আসেন না। এই বিষয়ে সরঞ্জা আদিবাসী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ তাহেরুল ইসলামকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি জানান, সহকারী শিক্ষিকা পাপিয়া সুলতানা ছুটি ছাড়াই রয়েছেন। আমাকে কোন ছুটির দরখাস্ত দেন নাই।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য