কুড়িগ্রামের চিলমারী ব্রহ্মপুত্র নদের ডান তীর রক্ষা প্রকল্পের ব্যাপক এলাকা নদী গর্ভে বিলিন হওয়ায় গোটা এলাকা পানিতে তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। স্রোতের তোড়ে ঘর-বাড়ি ভেসে যাওয়ার আশংকায় স্থানীয়রা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে।

বন্যার পানি বৃদ্ধির ফলে উপজেলার কাঁচকোল বাজার সংলগ্ন এলাকার ৫৬নং গ্রুপের কাজের প্রায় ৩০ মি. পিচিং বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধসহ গত বুধবার ভোরে নদী গর্ভে বিলিন হয়ে যায়। ওই এলাকায় বাঁধে আশ্রিত রফিয়ল (৫০) ও কলিমুদ্দিন জানান, বন্যার পানির স্রোতের তীব্রতা এত বেশি যেকোন সময় বাঁধ ভেঙ্গে গিয়ে আমাদের বাড়ি ঘর স্রোতের তোড়ে ভেসে যেতে পারে।

ফলে রাত জেগে জেগে থাকতে হচ্ছে। স্থানীয়রা জানান বন্যার ¯্রােতের তোড়ে নদী গর্ভে আংশিক বিলিন হওয়া বাঁধ রক্ষা করতে না পারলে ভাঙ্গনের তীব্রতা বৃদ্ধি পেয়ে কাঁচকোল পুটিমারী কাজল ডাঙ্গা এলাকা নদী গর্ভে বিলিন হয়ে যাবে।

এ ব্যাপারে পাউবো নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল ইসলামের সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, ওই এলাকার কাজটি নতুন করা হয়েছে। বন্যার পানির স্রোতের তোড়ে বাঁধের উপরের অংশের ১২-১৩ মি. পিচিংসহ নিচের অংশের ডাম্পিংয়ের অনেকটাই নদী গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে।

গত রাত থেকে তাৎক্ষনিকভাবে বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ফেলিয়ে ভাঙ্গন প্রতিরোধের চেষ্টা করা হচ্ছে। অপর দিকে ব্রহ্মপুত্র নদের চিলমারী পয়েন্টে বিপদ সীমার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। ৪-৫দিন যাবৎ বন্যার্ত মানুষেরা পানি বন্দি থাকায় তাদের দুঃখ-দুর্দশা মারাতœক আকার ধারণ করেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য