৫৭ ধারা বাতিলের দাবীতে সারাদেশে যখন সাংবাদিক সমাজ আন্দোলনে সোচ্চার ঠিক সেই মুহুর্তে লালমনিরহাটে স্থানীয় সাংবাদিক ওয়ালিউর রহমান রাজুর বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা দায়ের করেছেন কথিত এক মুক্তিযোদ্ধা নেতা।

মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই বাচাইয়ের অনিয়মের অভিযোগ তুলে বঞ্চিত মুক্তিযোদ্ধারা কথিত ওই মুক্তিযোদ্ধা নেতার বিরুদ্ধে মানব বন্ধন ও সংবাদ সম্মেলনসহ বিভিন্ন আন্দোলন করলে সাংবাদিক ওয়ালিউর রহমান রাজু তার গণমাধ্যম ও ফেসবুক যোগাযোগ মাধ্যমে সংবাদটি প্রচার করে। এরই প্রেক্ষিতে সোমবার লালমনিরহাট সদর থানায় ৫৭ ধারায় মামলা দায়ের করেন কথিত মুক্তিযোদ্ধা নেতা মেজবাহ উদ্দিন আহম্মেদ।

মামলা সুত্রে জানা যায়, প্রচারিত সংবাদে মেজবাহ উদ্দিন আহমেদকে বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি কর্নেল ফারুকের সহচর ও যুদ্ধের ময়দান থেকে পলায়নকারী ভিরু কাপুরুষ হিসেবে আখ্যা দেয়ায় তিনি মামলাটি দায়ের করেছেন।

এদিকে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা খর্বকারী ৫৭ ধারা আইনে স্থানীয় সাপ্তাহিক বাংলার সংবাদ পত্রিকার সম্পাদক ওয়ালিউর রহমান রাজুর বিরুদ্ধে এমন একটি অযৌক্তিক ভিত্তিহীন মামলা দায়ের করায়জেলার সাংবাদিকদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

সাংবাদিক ওয়ালিউর রহমান রাজু জানায়, মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাচাই নিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের দুটি অংশ পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন ও মানব বন্ধন করে। আমি তাদের লিখিত বক্তব্য অবগত হয়ে খবর পরিবেশন করেছি এবং ফেসবুকে পোষ্ট দিয়েছি।

মুক্তিযোদ্ধা একাংশের নেতা মোজাম্মেল হক জানায়, মামলার বাদী মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ তৎকালীন মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে যুদ্ধ ময়দানে আমি বা আমরা মুক্তিযোদ্ধারা তাকে দেখিনি। তারপরেওসে নিজেকে লালমনিরহাট জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডার হিসেবে পদ দখল করে আছেন। সাংবাদিক ওয়ালিউর রহমান রাজুর বিরুদ্ধে বাদীর মামলা দায়েরে নিন্দা জ্ঞাপন করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য