মিসরের সরকারি বিমান সংস্থা ইজিপ্টএয়ার থেকে যুক্তরাষ্ট্রের জারিকৃত যাত্রীদের ল্যাপটপ বহনে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির হোমল্যান্ড সিকিউরিট। বুধবার তারা জানায়, ইজিপ্ট এয়ারের যাত্রীরা এখন ল্যাপটপসহ অন্যান্য ডিভাইস বহন করতে পারবেন।

চলতি বছর মার্চে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ কয়েকটি দেশের যুক্তরাষ্ট্র যাওয়ার সময় বিমানে স্মার্টফোন ব্যতিত যেকোনও ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস বহনে নিষেধাজ্ঞা জারি করে ট্রাম্প প্রশাসন। এরপর চলতি সপ্তাহে নিরাপত্তা পরিস্থিতি সন্তোষজনক বলে কয়েকটি বিমানবন্দর ও এয়ারলাইন্স থেকে এই নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র। সেই ধারবাহিকতায় নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হলো ইজিপ্টএয়ার থেকে।

বুধবার এক টুইটবার্তায় এয়ারলাইন্সটি জানায়, কায়রো থেকে নিউইয়র্কগামী সকল বিমানের যাত্রীদের উপর থেকে ল্যাপটপ বহনে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে। তবে লন্ডনগামী যাত্রীদের উপর এখনও এই নির্দেশনা জারি রয়েছে।

আর মাত্র দুইটি দেশের বিমানে এই নিষেধাজ্ঞা জারি থাকলো। সৌদি আরবের এয়ারলাইন্স এক বিবৃতিতেজানায় ১৯ জুলাই তাদের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হবে। একইদিনে নিষেধাজ্ঞা উঠতে পারে রয়্যাল এয়ার ম্যারোকেরও। এক বিবৃতিতে এয়ারলাইন্সের সিনিয়র এক কর্মকর্তা জানান, ১৯ জুলাই ক্যাসাব্লাঙ্কার মোহাম্মদ ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টের ফ্লাইট থেকেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটির মুখপাত্র ডেভিড লাপান বলেন, ’১৯ জুলাই এই দুই এয়ারলাইন্সের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হতে পারে।’

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য