দিনাজপুর সদরঃ শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করন, বার্ষিক ৫ ভাগ প্রবৃদ্ধি প্রদান, নববর্ষের উৎসব বোনাস ও বার্ষিক পূর্ণাঙ্গ উৎসব বোনাস প্রদান এবং অবিলম্বে অবসরভাতা, কল্যাণ তহবিলে অতিরিক্ত ৪ ভাগ কর্তনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারসহ অন্যান্য দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে বাংলাদেশ কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি (বাকবিশিস) দিনাজপুর জেলা শাখা।

বুধবার (১২ জুলাই) দুপুরে দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে বাংলাদেশ কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি (বাকবিশিস) দিনাজপুর জেলা শাখা। বাকসিবিশ জেলা শাখার আহবায়ক বদিউজ্জামান বাদল’র সভাপতিত্বে মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন কাঞ্চন নিউ মডেল ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মাহবুবুর রহমান, বিরল মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ সুফিয়া নাহার মঞ্জু প্রমখ।

এদিকে একই সময়ে বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের অবসর সুবিধা ও কল্যাণ ট্রাষ্টের জন্য অতিরিক্ত ৪% বেতন কর্তনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি দিনাজপুর সদর উপজেলা শাখা।

শিক্ষক সমিতি দিনাজপুর সদর উপজেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. সামিনুর ইসলাম’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাসউদ আলম’র সঞ্চালনায় মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন জেলা শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. মাতলুবুল মামুন, বাকবিশিস জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. বদিউজ্জামান বাদল, শিক্ষক সমিতি জেলা শাখার সহ-সভাপতি মো. ফজলুর রহমান, প্রচার সম্পাদক হিরন্ময় দত্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক সফিকুল ইসলাম, দিনাজপুর মিউনিসিপ্যাল হাই স্কুলের (বাংলা স্কুল) প্রধান শিক্ষক মো. সমসের আলী, ঈগাহ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ফজলুর রহমান প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীগণের ন্যায়সঙ্গত দাবী “বাষিক ৫% বেতন বৃদ্ধি, বৈশাখী ভাতা, পূর্ণাঙ্গ উৎসব ভাতা ও বাড়ি ভাড়াসহ মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়করণের জন্য দীর্ঘদিন থেকে নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন করে আসছে শিক্ষক সমিতি। শিক্ষক সমাজের আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য বেতন থেকে ৬% এর পরিবর্তে ১০% কর্তনের অযৌক্তিক ও অমানবিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। অতিরিক্ত ৪% কর্তন করে শিক্ষক-কর্মচারীগণকে অতিরিক্ত কী সুবিধা প্রদান করা হবে সে ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত উল্লেখ না থাকায় সারা দেশের শিক্ষক-কর্মচারীগণ আজ ক্ষুব্ধ হয়েছেন। তারা অবিলম্বে এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবী জানান।

বিরামপুরঃ দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার সকল বে-সরকারী হাইস্কুল, মাদ্রাসা ও কলেজের শিক্ষকগণ পাঁচ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে বুধবার (১২ জুলাই) স্থানীয় ঢাকা মোড়ে সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে।

বিরামপুর উপজেলা শিক্ষক সমিতির আয়োজনে শিক্ষকদের মানববন্ধনে বে-সরকারি শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণ, ৫ ভাগ বাৎসরিক প্রবৃদ্ধি, পূর্ণাঙ্গ উৎসব ভাতা, বৈশাখী ভাতা ও অতিরিক্ত ৪ ভাগ কর্তনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়। উপজেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি ফারুক-ই-আজমের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, বিজুল দারুল হুদা কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ড. নূরুল ইসলাম, মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ শিশির কুমার, বিএম কলেজের অধ্যক্ষ রেজাউল করিম সেলিম, সমিতির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, পাইলট হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক আরমান হোসেন, ভবানীপুর মাদ্রাসার সুপার গোলজার রহমান, বিনাইল হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান, রামকৃষ্ণপুর হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক জুলফিকার মতিন, আদর্শ হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক সাইদুর রহমান, শিক্ষক আব্দুল করিম, জাকির হোসেন প্রমূখ।

ফুলবাড়ীঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে অবসর ও কল্যান তহবীলে অতিরিক্ত টাকা কর্তনের প্রতিবাদে, এক ঘন্টা ব্যাপী মানব বন্ধন করেছেন, বেসরকারী শিক্ষক ও কর্মচারী। বেসরকারী শিক্ষক সমিতি ফুলবাড়ী শাখার উদ্যোগে, বুধবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত, স্থানী নিমতলা মোড়ে, দিনাজপুর-–ঢাকা মহাসড়কের পার্শে এই মানব বন্ধন করেন। মানব বন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, বেসরকারী শিক্ষক সমিতি ফুলবাড়ী শাখার সভাপতি ও সুজাপুর মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সঞ্জয় কুমার চক্রবর্তী, সাধারন সম্পাদক ও ফুলবাড়ী জিএম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তোজাম্মেল হক, কোষাধক্ষ্য ও পুখুরী স্কুল এ্যান্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, শিক্ষক নেতা সিএম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক একেএম আসাদুজ্জামান কনক, অ¤্রবাড়ী আর্দশ্য উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সামিউল আলম প্রমুখ। গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি উপেক্ষা করে শিক্ষক কর্মচারীগণ মানব বন্ধনে অংশ গ্রহন করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য