আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট থেকে: লালমনিরহাটে বন্যা পরিস্থিতি সার্বিক উন্নতি হয়েছে। ভারি বর্ষণ ও ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল কিছুটা কমে গেছে। গত কয়েকদিন থেকে বিপদসীমার উপর দিয়ে তিস্তার পানি প্রবাহিত হলেও বুধবার সকাল ৯ টা থেকে তিস্তা ব্যারাজের দোয়ানী পয়েন্টে পানি কমে বিপদসীমার ১০ সেন্টিমিটার নিজ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে জানিয়েছে পনি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)।

বৃহত্তম সেচ বোর্ড প্রবাহ রেকর্ড করা হয় ৫২ দশমিক ২৭ সেন্টিমিটার। যা স্বাভাবিকের (৫২.৪০ সে.মি.) চেয়ে ১৩ সে. মি. নিচে।এর আগে গত সপ্তাহে পানি প্রবাহ কয়েক দফায় বৃদ্ধি পেয়ে বিপদ সীমার ৩০ সেন্টিমিটার অতিক্রম করেছিল। গত তিন দিন এক টানা বিপদসীমা অতিক্রম করে তিস্তায় পানি প্রবাহের ফলে জেলার ৫টি উপজেলার প্রায় ৪০হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়ে।

পানিবন্দি এসব পরিবার কেউ উঁচু রাস্তা, বাঁধের উপর আবার কেউ কেউ খাটের উপর খাট বসিয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।তিস্তার পানি প্রবাহ বিপদসীমার নিচে নেমে আসায় বন্যা পরিস্থিতিও অনেকটাই উন্নতি ঘটেছে। ঘর বাড়ি থেকে নামতে শুরু করেছে বন্যার পানি।টানা তিন দিনের এ বন্যায় বেশ কিছু কাঁচা রাস্তা ও বাঁধ ভেঙে গেছে।

বীজতলাসহ নষ্ট হয়েছে কয়েক হাজার হেক্টর জমির ফসল। পানি কমে যাওয়ায় দেখা দিয়েছে নদী ভাঙন। এরই মধ্যে জেলার প্রায় অর্ধশতাধিক বসত বাড়ি নদী গর্ভে বিলিন হয়েছে।এদিকে বন্যা কবলিত পরিবারগুলোর মাঝে সরকারিভাবে ত্রাণ বিতরণ করা হলেও তা প্রয়োজনের তুলনা একেবারেই কম বলে অভিযোগ বানভাসি মানুষের।মহিষখোচা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোসাদ্দেক হোসেন চৌধুরী জানান,তার ইউনিয়নের প্রায় ৪ হাজার পরিবার পানিবন্দি।

এসব পরিবারের জন্য সরকারিভাবে ২শ ব্যাগ শুকনো খাবার ২শ পরিবারের মাঝে বুধবার বিতরণ করা হচ্ছে। আরও এক হাজার দুই শত পরিবারকে মাথাপিছু ১০ কেজি হারে চাল বিতরণ করা হবে।তিস্তা ব্যারাজের নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান জানান, মঙ্গলবার রাত থেকে কমতে শুরু করে তিস্তার পানি প্রবাহ।

বুধবার সকাল ৭ টায় বিপদসীমার ১০ সেন্টিমিটার ও সকাল ৯টায় আরো কমে গিয়ে বিপদসীমার ১৩ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে তিস্তার পানি প্রবাহ রেকর্ড করা হয়।লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবুল ফয়েজ মো. আলাউদ্দিন খাঁন জানান, পানিবন্দি পরিবারগুলোর জন্য জিআর ১৭৫ মেট্রিক টন চাল ও সাড়ে ৬ লাখ টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য