মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর থেকেঃ দিনাজপুরে প্রমিলা ক্রিকেটারকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ক্রিকেট কোচ আবু সামাদ মিঠুকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১১ জুলাই) দুপুরে অঅদালতে উপস্থিত হয়ে জামিন আবেদন করলে দিনাজপুরের অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক বিশ্বনাথ মন্ডল তার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। দিনাজপুর পুলিশের পরিদর্শক রবিউল আলম এই সংবাদটি নিশ্চিত করেছেন।

অভিযুক্ত আবু সামাদ মিঠু দিনাজপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাহী সদস্য ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) গেম ডেলেভপমেন্ট কোচ। একইসাথে তিনি দিনাজপুর প্রচেষ্টা ক্রিকেট কোচিং সেন্টারের পরিচালক।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, প্রায় ৩ বছর ধরে নবম শ্রেণিতে পড়–য়া এক ছাত্রী কোচ মিঠুর অধীনে অনুশীলন করে আসছিল। গত ১ জুন মাঠে অনুশীলন করার সময় ওই ছাত্রী বলের আঘাতপ্রাপ্ত হলে কোচ মিঠু তাকে স্পোর্টস ভিলেজে নিয়ে যান।

সেখানে একা পেয়ে মিঠু ওই প্রমিলা ক্রিকেটারকে জাপটে ধরেন। এতে বাধা দিলে মিঠু বিভিন্ন ভয়ভীতি প্রদর্শন করে ও হুমকী দিয়ে জোড়পূর্বক ওই ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি ও যৌন নিপীড়ন করে। পরে বাড়িতে গিয়ে ওই ছাত্রী মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে এবং অন্য এক প্রমিলা ক্রিকেটারের মাধ্যমে বিষয়টি অভিভাবকরা জানতে পারেন।

এই ঘটনার পর ভীকটিমের পিতা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট অভিযোগ করেন এবং নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এদিকে অভিযোগ পাওয়ার পর মিঠুকে বিসিবি থেকে এব জেলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয় এবং এ ঘটনায় ২টি পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য