হিলারি ক্লিন্টনের নির্বাচনী প্রচার ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে এমন তথ্য দেওয়ার প্রতিশ্রুতি পেয়ে গতবছরের নির্বাচনের সময় রুশ আইনজীবীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে রাজি হয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাম্পের বড় ছেলে।

হোয়াইট হাউজের তিন উপদেষ্টার বরাত দিয়ে ‘দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস’ একথা জানায়।

তবে ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র রোববার জোর দিয়েই বলেছেন, রাশিয়ার আইনজীবী নাতালিয়া ভেসেলনিতস্কায়া প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তার বাবার প্রতিদ্বন্দ্বীর বিরুদ্ধে ওই সময় কোনো তথ্য দেননি এমনকি তথ্য দেওয়ার প্রস্তাবও দেননি। প্রকৃতপক্ষে তার কাছে অর্থবহ কোনও তথ্য ছিল না।

শনিবার ‘নিউ ইয়র্ক টাইমস’ এর প্রতিবেদনে ২০১৬ সালের ৯ জুন ম্যানহাটানের ট্রাম্প টাওয়ারে রুশ আইনজীবীর সঙ্গে ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র, ইভাঙ্কা ট্রাম্পের স্বামী জারেড কুশনার এবং ট্রাম্পের নির্বাচনী শিবিরের সাবেক ব্যবস্থাপক পল ম্যানাফোর্টের বৈঠকের খবর ছাপা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠজনদের সঙ্গে রাশিয়ার কোনও নাগরিকের এটিই প্রথম নিশ্চিত কোনও বৈঠক। নিউ ইয়র্ক টাইমসের এ প্রতিবেদন প্রকাশের পর বিবৃতি দিয়ে ওই বৈঠক হওয়ার কথা স্বীকার করেছেন ট্রাম্প জুনিয়র।

তবে বিবৃতিতে তিনি এও বলেছেন, বৈঠকটি ‘নির্বাচনী প্রচার সংক্রান্ত ছিল না’। বরং তার পরিচিত একজন তাকে ওই বৈঠকের প্রস্তাব দেন এবং তিনি জানতেন না কার সঙ্গে তার বৈঠক হতে যাচ্ছে।

ট্রাম্প জুনিয়রের ওই ‘পরিচিত একজন’ সংগীত প্রকাশক রব গোল্ডস্টোন বলে নিশ্চিত করেছে ওয়াশিংটন পোস্ট। যার রাশিয়ার সংগীত শিল্পের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে।

রোববার নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, হিলারির জন্য সম্ভবত ক্ষতিকর হবে এমন তথ্য দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়ায় ট্রাম্প জুনিয়র ওই বৈঠক করতে রাজি হয়েছিলেন।

রোববারের প্রতিবেদনের পর আরও একটি বিবৃতিতে ট্রাম্প জুনিয়র বলেন, “আমাকে এক ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করার প্রস্তাব দিয়ে বলা হয়েছিল, তিনি হয়ত নির্বাচনী প্রচারে সহায়ক হবে এমন তথ্য আমাকে দিতে পারবেন।”

“বৈঠকের আগে আমি তার নাম জানতাম না। আমি জারেড ও পলকে বৈঠকে অংশ নেওয়ার কথা বলি, কিন্তু বৈঠকের বিষয়বস্তু সম্পর্কে তাদের কিছুই বলিনি।”

এদিকে, নিউ ইয়র্ক টাইমসে খবর প্রকাশের পর শনিবার ভেসেলনিতস্কায়া বলেন, ট্রাম্প টাওয়ারের বৈঠকে ‘নির্বাচনী প্রচার নিয়ে কোনও আলোচনা হয়নি’। সেইসঙ্গে তিনি জোর দিয়ে বলেন, তিনি কখনওই রুশ সরকারের হয়ে কাজ করেননি এবং ওই বৈঠক নিয়ে সরকারের প্রতিনিধি কারও সঙ্গে কখনওই কোনও আলোচনা করেনি।

এ বিষয়ে কুশনার বা ম্যানাফোর্ট কেউই এখন পর্যন্ত কোনও মন্তব্য করেননি।

রোববার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আইনী দলের পক্ষ থেকে এ সম্পর্কে বলা হয়, “প্রেসিডেন্ট এ বিষয়ে কিছুই জানেন না এবং তিনি সেখানে উপস্থিতও ছিলেন না।”

অন্যদিকে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ সোমবার বলেন, তারা নাতালিয়া ভেসেলনিতস্কায়াকে চেনেন না। আমাদের পক্ষে দেশে বা বিদেশে রাশিয়ার সব আইনজীবীর সব বৈঠক নিয়ে নজরদারি সম্ভব নয়।”

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য