গেল তিন মাসে রংপুর জেলায় ১২টি খুনের ঘটনা ঘটেছে। ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ১৪ জন। এছাড়া নারী ও শিশু নির্যাতন, চুরি, ছিনতাই, রাহাজানি ও ডাকাতিসহ ৯৫৭টি অপরাধ সংঘটিত হয়েছে।

রোববার দুপুরে রংপুর জেলা প্রশাসকের সভা কক্ষে আইন-শৃঙ্খলা কমিটির ত্রৈ-মাসিক সভায় গত এপ্রিল, মে ও জুন মাসের এসব অপরাধ ফিরিস্তি তুলে ধরা হয়।

সভায় জানানো হয়, এপ্রিল মাসে ৬টি, মে ও জুন মাসে ৩টি করে খুনের ঘটনা ঘটেছে। এপ্রিল মাসে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৮ জন, মে মাসে ৪ এবং জুনে ২ জনসহ মোট ১৪জন। এছাড়া ওই তিন মাসে নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে ৪৭টি।
অন্যদিকে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা হয়েছে ৩৪১টি, অস্ত্র আইনে ৫টি, চুরি হয়েছে ২৮টি, রাহাজানি ৩টি, অপহরণ ৩টি এবং অন্যান্য ৫০২টিসহ মোট ৯৫৭টি অপরাধের বিবরণ রেকর্ড হয়েছে।

অপরাধ চিত্রের পর্যালোচনায় কমিটির সদস্যরা প্রতিটি খুনের যথাযথ তদন্তেও মাধ্যমে অপরাধীর শাস্তি নিশ্চিত করার উপর গুরুত্বারোপ করেন। এসময় তারা মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধ, জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের কুফল, মোবাইল কোর্ট অভিযান, গ্রাম আদালতের কার্যক্রম, চিকিৎসা সেবা কেন্দ্রগুলোর মানোন্নয়ন, নগরীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন।

জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামানের সভাপতিত্বে সভায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্বিক) ফজলে এলাহী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু রাফা মোহাম্মদ আরিফ, জেলা সমাজসেবা অফিসের উপ-পরিচালক আব্দুর রাজ্জাক, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক দিলারা রহমান, সহকারী কমিশনার মিন্টু বিশ্বাস, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কাওসার পারভীন, জেলা দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক আকবর হোসেন, সাবেক কাউন্সিলর আজমল হোসেন লেবুসহ কমিটির বিভিন্ন সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য