বঙ্গোপসাগরে নৌবাহিনীর মহড়া আগামীকাল রোববার থেকে শুরু হবে বলে মনে করা হচ্ছে। এতে ভারতের বড় ভূমিকা রয়েছে। এ পর্যন্ত এটি দ্রুতগামী নৌ-মহড়া। মহড়াটিকে সতর্ক পর্যবেক্ষকের আওতায় রাখবে চীন। এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, বঙ্গোপসাগরের মহড়ায় জাপান- যুক্তরাষ্ট্র-ভারতের যুদ্ধজাহাজ থাকবে। এই যুদ্ধ জাহাজগুলো আজ শনিবার থেকে এসে পৌঁছানোর কথা।

চীনা সরকারের মুখপাত্র বলেন, তাঁরা আশঙ্কা করছেন, এ ধরনের সম্পর্ক এবং সহযোগিতা তৃতীয় কোনো দেশের বিরুদ্ধে যাবে না। আঞ্চলিক শান্তি ও নিরাপত্তা রক্ষায় এটি সহায়ক হবে।

১৯৯২ সালে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের মহড়ার মধ্য দিয়ে মালাবার মহড়া শুরু হয়। ২০১৪ সালের পর থেকে প্রতিবছর জাপান এই মহড়ায় যুক্ত হয়। ভারত সাগর ও বিতর্কিত দক্ষিণ চীন সাগরের কাছে এই মহড়া চলে। চীনের বিরোধিতার আশঙ্কায় অস্ট্রেলিয়াকে এ বছর এই মহড়ায় যোগ দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

দক্ষিণ চীন সাগরকে নিজেদের জলসীমা বলে দাবি করে বেইজিং। বেশ কয়েকটি যুদ্ধজাহাজ, সাবমেরিন ও এয়ারক্র্যাফট এই মহড়ায় অংশ নেয়। ভারত ও প্রশান্ত মহাসাগরজুড়ে তিনটি দেশের নৌবাহিনীর জাহাজ এতে অংশ নেয়।

২০১৩ সাল থেকে ভারত সাগরে চীন কমপক্ষে ছয়টি সাবমেরিন মোতায়েন করে। এটি নিয়ে উদ্বিগ্ন ভারত। এ ছাড়া সিকিম নিয়েও দুই দেশের মধ্যে বিতর্ক রয়েছে।

জার্মানিতে জি-২০ সম্মেলনে আজ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিংয়ের দেখা করার কথা। তবে গতকাল চীন সাফ জানিয়ে দিয়েছে, ভারতের সঙ্গে কোনো দ্বিপক্ষীয় আলোচনা হবে না।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য