দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ব্যায়বহুল জীবন যাপনে অভ্যস্ত না হয়ে যে কোন ধরনের কাজকে গুরুত্ব দেয়ে দেয়া উচিত শিক্ষার্থীদের। পাশাপাশি কর্মমূখী স্রোতের বিপরীতে বিভিন্ন কারিগরি জ্ঞান অর্জন করে সেগুলোকে উদ্যোক্তা হিসেবে কাজে লাগাতে হবে। একটা ছোট সাদা কাগজ দিয়ে অনেক কিছু করা যায়, তাই আমাদের নতুন কিছু চিন্তা করা শিখতে হবে। আর বর্তমানে তো অনেক শিক্ষার্থী আছেন যারা লেখাপড়ার পাশাপাশি আউটসোর্সিং এর কাজ করে প্রতি মাসে প্রায় এক লাখ টাকা উপার্জন করেন।

৬ জুলাই বৃহস্পতিবার সকালে ঘাসিপাড়াস্থ শহর সমাজসেবা কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ‘শহর সমাজসেবা প্রকল্প পরিষদের আয়োজনে ৩০তম ব্যাচের ৬ মাস ব্যাপী কম্পিউটার ও সেলাই প্রশিক্ষন’ (উন্নয়ন দক্ষতা প্রশিক্ষন) কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আব্দুর রহমান এসব কথা বলেন।

৬ মাস ব্যাপী কম্পিউটার ও সেলাই প্রশিক্ষন নিতে ৩৯০ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছেন। তাদের প্রশিক্ষন দিবেন প্রধান কম্পিউটার প্রশিক্ষক মোবাশ্বেরুল ইসলাম (মানু), সহকারী কম্পিউটার প্রশিক্ষক মেহেনাজ পারভীন মিলি ও মামুনুর রশীদ মামুন।

আয়োজকরা জানান, প্রশিক্ষনে কম্পিউটার অফিস এ্যাপ্লিকেশন, হার্ডওয়্যার এন্ড নেটওয়ার্কিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন এন্ড মাল্টিমিডিয়া ও ড্রেস মেকিং এন্ড টেইলারিং প্রশিক্ষন প্রদান করা হবে এবং প্রশিক্ষন শেষে প্রত্যেককে সনদ প্রদান করা হবে।

জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক ও শহর সমাজসেবা সমন্বয় পরিষদের সভাপতি ষ্টিফেন মুর্মু’র সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শহর সমাজসেবা সমন্বয় পরিষদের সহ-সভাপতি মো. বজলুল হক, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মো. আতাউর রহমান আজাদ (বাবলু), সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামরুল হুদা হেলাল ও সদস্য মো. আহসানুল হক চৌধুরী।

স্বাগত বক্তব্য দেন প্রধান কম্পিউটার প্রশিক্ষক মো. মোবাশ্বেরুল ইসলাম। প্রশিক্ষন সম্পর্কে দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন শহর সমাজসেবা প্রকল্প পরিষদের সদস্য সচিব ও সমাজসেবা অফিসার মো. মাইনুল ইসলাম।
শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ১৪ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী তৌহিদুল ইসলাম ও ২৯ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ফারজানা।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে শহর সমাজসেবা সমন্বয় পরিষদের কোষাধ্যক্ষ মকসেদুর রহমান, সদস্য মনোয়ারা সানু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও পবিত্র গীতা পাঠের মধ্যদিয়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু করা হয়। পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন প্রশিক্ষক মোবাশ্বেরুল ইসলাম মানু ও পবিত্র গীতা থেকে পাঠ করেন শিক্ষার্থী সুবর্না রানী। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন প্রশিক্ষক মামুনুর রশীদ মামুন।

প্রসঙ্গক্রমে উল্লেখ্য, প্রতিষ্ঠানটি গত ২০০৪ সালের এপ্রিল মাসে ৫০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে ৩ মাস মেয়াদী প্রথম কম্পিউটার শর্ট কোর্স ব্যাচ শুরু করে। পরে ২০০৫ সালে ৫২৫ জন ছাত্র-ছাত্রী নিয়ে ৬ মাস মেয়াদী (জুলাই-ডিসেম্বর) পরিপূর্ণভাবে কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোর্স শুরু করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৭ সালের জানুয়ারী-জুন ৬ মাস মেয়াদী ২৯ তম ব্যাচে কম্পিউটার ও সেলাই প্রশিক্ষনের ২৩১ জন ছাত্র-ছাত্রী নিয়ে চূড়ান্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। আর কেন্দ্র হিসেবে লিখিত পরীক্ষার সকল ভ্যানু আদর্শ মহাবিদ্যালয় সার্বিক ভাবে সহযোগিতা করে থাকেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য